আলমগীর মানিক,রাঙামাটি :

উপজাতীয় নারী জনপ্রতিনিধিকে ধর্ষণের অভিযোগে ঝংকু চাকমা বাবলু (৩৫)নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছে রাঙামাটি কোতয়ালী থানা পুলিশ। ভূক্তভোগী নারীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে শুক্রবার সকালে রাঙামাটি শহরের একটি আবাসিক হোটেল থেকে অভিযুক্ত ঝন্টু চাকমাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর জাহেদুল হক রনি। গ্রেফতারকৃত ঝন্টু চাকমার বিরুদ্ধে আগেও নারী ঘটিত ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গত মার্চ মাসে আরো একটি মামলার আসামী ছিলো সে। ঘটনার শিকার নারী ভিকটিমকে বর্তমানে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে।

মামলার বিবরণসহ ঘটনার অনুসন্ধানে জানাগেছে, লংগদু উপজেলাধীন ছোট কাট্টলী এলাকার বাসিন্দা উক্ত নারী ইউপি মেম্বার সম্পর্কে ঝংকু চাকমা ওরফে বাবলু’র চাচাতো বোন হয়। ভিকটিমের স্বামীর সাথে মনোমালিন্য হওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ঝংকু চাকমা ভিকটিমের পাশে দাঁড়ানোর নাম করে এবং একটা সময় প্রভাবশালী আঞ্চলিকদলের সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে উক্ত মহিলা মেম্বারের স্বামীকে বেদড়ক পিটুনী দেয়। এতে করে ভিকটিমের সাথে ঘনঘন যোগাযোগের মাধ্যমে এক পর্যায়ে ২৪শে এপ্রিল সন্ধ্যা ৬ টায় ভিকটিমকে রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারের একটি আবাসিক হোটেলে নিয়ে আসে। এসময় হোটেলটির ৪০৪ নাম্বার কক্ষে রাতে কোমল পানীয়’র সাথে ঘুমের ঔষধ খাইয়ে সারারাত উক্ত নারী জনপ্রতিনিধিকে ধর্ষণ করে উক্ত ঝংকু চাকমা।

পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) সকালে বিষয়টি নিয়ে তিনি তার স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করে পরবর্তীতে রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা নিশ্চিত হওয়ার পর পুলিশ উক্ত নারীকে বর্তমানে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখার ব্যবস্থা করেছে মন্তব্য করে কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর জাহেদুল হক রনি জানিয়েছেন, আমরা উক্ত ভূক্তভোগী নারী কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরপরই অভিযান পরিচালনা করে শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) সকালে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী-২০০৩) এর ৯(১) ধারায় মামলা গ্রহণ করি। মামলা নাম্বার-২৮, তারিখ-২৬/০৪/২০১৯ইং।

জনাব রনি আরো জানান, গ্রেফতারকৃত ঝংকু চাকমার নামে আগেও অপরজনের স্ত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগে আরো একটি মামলা রয়েছে। দন্ডবিধি ৩৮০/৩৭৯/৫০৬(২)/৪৯৮ ধারায় দায়েরকৃত উক্ত মামলা নাম্বার ছিলো-১৬, তারিখ: ২৩/০৩/২০১৯ইং।

এদিকে ধর্ষণের শিকার নারীকে বর্তমানে রাঙামাটি ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে রাখা হয়েছে আগামী রোববার তাকে ডাক্তারী পরীক্ষা করানো হবে বলে জানিয়েছে থানা পুলিশ।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে গ্রেফতারকৃত ঝংকু নিজেকে বিভিন্ন সময় নিরাপত্তা বাহিনীর নিজস্ব লোক পরিচয় দিয়ে নানা রকম অপকর্ম চালাতো। বিভিন্ন স্থান থেকে মেয়েদের নিয়ে এসে রাতে হোটেলে রাত কাটানোসহ এবং তার মালিকানাধীন কাপ্তাই হ্রদের ওপারে অবস্থিত মেজাং রেষ্টুরেন্টে নিয়ে গিয়ে প্রায় সময়ই ফুর্তি তামাশায় লিপ্ত হয় ঝন্টু ওরফে বাবলু চাকমা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •