রামুতে পালিত হয়েছে বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবস

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

‘আমিই করবো ম্যালেরিয়া নির্মূল’ প্রতিপাদ্যে রামুতে পালিত হয়েছে বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবস। এ উপলক্ষে স্বাস্থ্য বিভাগ ও এনজিও সংস্থা মুক্তি-কক্সবাজার এর উদ্যোগে ২৫ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) সকালে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাঙ্গন থেকে এক বিশাল র‌্যালী বের করা হয়। এর পরে হাসপাতাল মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডা. মিছবাহ উদ্দীন আহমদ। তিনি বলেন ‘ম্যালেরিয়া নির্মূলে জনসচেতনতা সৃষ্টির বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে সর্বস্তরের স্বাস্থ্যসেবীদের আরো অধিকতর দায়িত্বসচেতন হতে হবে’। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এনজিও সংস্থা মুক্তি-কক্সবাজার এর উপজেলা ম্যানেজার দুলাল বড়–য়া,

তিনি জানান শীঘ্রই স্বাস্থ্য বিভাগের সহযোগিতায় ম্যালেরিয়া উপদ্রুত এলাকায় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচীর আওতায় কীটনাশকযুক্ত মশারী বিতরন করা হবে।

সভায় অভিমত ব্যক্ত করেন স্বাস্থ্য পরিদর্শক বিপ্লব বড়–য়া (ইনচার্জ),স্বাস্থ্য পরিদর্শক মোহাং আলম,সহ: স্বাস্থ্য পরিদর্শক দর্পণ বড়–য়া, সহ:স্বাস্থ্য পরিদর্শক পংকজ শর্মা, মুক্তির পিও সঞ্জয় বৈদ্য, পিও রায়হান মাহমুদ, ল্যাব ট্যাকনেশিয়ান সজীব কান্তি, ব্রাক উপজেলা ম্যানেজার (স্বাস্থ্য) আবু আহমদ।

সভায় বক্তারা বলেন , সব ধরনের হাসপাতালেই এখন ম্যালেরিয়ার চিকিৎসা পাওয়া যায়। থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, কমিউনিটি ক্লিনিক অথবা জেলা হাসপাতালগুলোতে সহজে ম্যালেরিয়ার চিকিৎসা পাওয়া যায়। যথাযথ সময়ে সঠিক চিকিৎসা নিলেই ম্যালেরিয়া থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

তারপরও এটাই সত্য যে, পৃথিবীর প্রায় অর্ধেক মানুষই এখনো ম্যালেরিয়া ঝুঁকিতে। এই ঝুঁকিতে রয়েছে বাংলাদেশেরও পৌনে দুই কোটি মানুষ। স্ত্রী এনোফিলিস মশার কামড়ে প্লাজমোডিয়াম গোত্রের পরজীবী শরীরে প্রবেশ করলে এই ম্যালেরিয়া রোগ হয়।

ম্যালেরিয়ার লক্ষণ সাধারণত কাঁপুনিসহ জ্বর, মাথাব্যথা থেকে শুরু করে খুব গুরুতর ক্ষেত্রে মৃত্যুর কারণও হতে পারে। ম্যালেরিয়ার জীবাণু মানবদেহে সুপ্ত অবস্থায় অনেক বছর পর্যন্ত জীবিত থাকতে পারে।

বাংলাদেশের ৬৪ জেলার মধ্যে দক্ষিণ এবং উত্তর-পূর্ব সীমান্তবর্তী ১৩টি জেলার ৭১টি উপজেলায় ম্যালেরিয়া রোগের মারাত্মক প্রাদুর্ভাব রয়েছে। এর মধ্যে ম্যালেরিয়াপ্রবণ এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে পার্বত্য রাঙ্গামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি জেলাকে। তবে আগের তুলনায় ম্যালেরিয়ার প্রভাব কমেছে অনেকখানি।

২০০১ সালের ২৫ এপ্রিল আফ্রিকাতে প্রথম এ দিবস পালিত হয়। ২০০৭ সালে ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলির ৬০তম অধিবেশনে প্রস্তাবনা আনা হয় বিশ্ব ম্যালেরিয়া দিবসের।

পরের বছর থেকে প্রতি ২৫ এপ্রিল পালিত হয়ে আসছে দিবসটি।

সর্বশেষ সংবাদ

শত বছরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি যে গ্রামে

দিল্লি থেকে উচ্চ পর্যায়ের সফর আশা করছে ঢাকা

পেটের ভেতরে করে ইয়াবা পাচার করছে রোহিঙ্গারা

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিএইচটিএম বিভাগের ইফতার মাহফিল

চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি সাংবাদিকতা, কোণঠাসাও

ধর্ষণ: বেশি শিকার শিশুরা

মোদিকে বিএনপির অভিনন্দন

হালিম প্রতারণা !

শিক্ষক সমাজের জীবন্ত আদর্শ ও শিক্ষাগুরু কবি আফজল আহমদ বি.এ

কোনাখালী শতাধিক ভূমিহীন পরিবার পাচ্ছেন কৃষি খাসজমি

লংগদুতে মায়ের বকুনি সহ্য করতে নাপেয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

চকরিয়া সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক বাঙ্গালী পাঠান আর নেই

মাতামুহুরী সেতু আবারো ভাঙনে জনদুর্ভোগ চরমে

খুটাখালীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন: বনভূমি কেটে বালু দস্যুদের সড়ক নির্মাণ

কক্সবাজার কারাগার থেকে ইয়াবা উদ্ধার

স্থানীয়রাও সমপরিমাণ সহায়তা পাবে : দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী

কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাচন ১৩ জুন: নিষ্পত্তি হয়নি চেয়ারম্যান পদের রুল

হোপ ফাউন্ডেশনের ‘আন্তর্জাতিক ফিস্টুলা নির্মূল দিবস উৎযাপন

খুরুশ্কুল ইউনিয়নের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

কর্ণফুলী নদীতে পাথরবোঝাই ‘সী-ক্রাউন’ জাহাজ ডুবি