সৈকত আবাসিক এলাকার প্লট অ-আবাসিক/বাণিজ্যিক অনুমতি নীতিমালা প্রণয়ন সভা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
২৫ এপ্রিল ২০১৯ তারিখ দুপুর ১২টায় কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সভাকক্ষে কক্সবাজার সমুদ্র সমুদ্র সৈকত আবাসিক এলাকার প্লট অ-আবাসিক/বাণিজ্যিক হিসেবে ব্যবহারের অনুমতি প্রদানের নীতিমালা প্রণয়নের বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতি বলেন, গণপূর্তের প্লটসমূহ আবাসিক হিসেবে বরাদ্দ দেওয়া হলেও বেশির ভাগ প্লট বাণিজ্যিক কাজে হোটেল/মোটেল হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, ২০১৩ সালে গেজেট বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রণয়নকৃত মাস্টার প্ল্যানে কলাতলী- সুগন্ধা পয়েন্ট রোড সংলগ্ন জমি ট্যুরিস্ট ফ্যাসিলিটি জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কিন্তু ২০০২/২০০৩ সালের দিকে কক্সবাজার গণপূর্ত বিভাগ হতে এ সকল এলাকায় বরাদ্দকৃত প্লট আবাসিক হিসেবে চিহ্নিত। বর্ণিত অবস্থায় প্লট সমূহের ভূমি ব্যবহার ছাড়পত্র প্রদানে জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে। তাই জনগণের স্বার্থে এ বিষয়ে সমাধান প্রয়োজন।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মনিটরিং) জনাব মো: হেমায়েত হোসেন বলেন আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারি হিসেবে জনস্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করা উচিত। যেখানে জনস্বার্থ রক্ষিত হবেনা সেখানে কখনো দেশ ও জাতির উন্নয়ন হতে পারে না। তিনি কক্সবাজার গণপূর্ত বিভাগের প্লটসমূহের সুষ্ঠু সমাধান তথা ভূমি ব্যবহার জটিলতা নিরসনের জন্য অতি দ্রুত নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে বলে জানান। তিনি আরো বলেন যে, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন বিধায় নীতিমালা প্রণয়ন কমিটি কর্তৃক আজকের এ সভা আহ্বান করা হয়েছে।

সভায় গণপূর্তের আবাসিক এলাকার প্লটসমূহ বিষয়ে কউকের গৃহীত কার্যক্রম, প্রজ্ঞাপন, বিভিন্ন কমিটির সিদ্ধান্ত, মাস্টার প্ল্যান ইত্যাদি সম্বলিত তথ্যবহুতল পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সদস্য (প্রকৌশল) লে: কর্নেল মোহাম্মদ আনোয়ার উল ইসলাম।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ড. মো: মনিরুল হুদা, যুগ্ম সচিব, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, মো: সাইফুর রহমান, প্ল্যানার, নগর উন্নয়ন অধিদপ্তর, এস এম এ জাহিদ অপু, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী, কক্সবাজার গণপূর্ত বিভাগ; মীর মো: সিরাজুল কালাম আজাদ, সহকারী প্রকৌশলী, কক্সবাজার পৌরসভা, নঈমুল হক চৌধুরী টুটুল, সভাপতি জেলা জাসদ, কক্সবাজার; এডভোকেট প্রতিভা দাশ, সদস্য, কউক, ডা: সাইফুদ্দিন ফরাজি, সদস্য কউক; প্রকৌশলী বদিউল আলম, সদস্য কউক; মো: শাহজাহান, সাবেক জেলা কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আবুল কাসেম সিকদার, সাধারণ সম্পাদক, হোটেল মোটেল মালিক, বিনয় কুমার বড়ুয়া, পুলিশ পরিদর্শক, শহর ও যানবাহন শাখা; মো: মোস্তাফিজুর রহমান, কামরুল ইসলাম সাধারণ সম্পাদক, সৈকতপাড়া সমাজ কমিটি; রিয়াদ ইফতেখার, লিটন পাল, সমিতি প্রমূখ।

সর্বশেষ সংবাদ

শত বছরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি যে গ্রামে

দিল্লি থেকে উচ্চ পর্যায়ের সফর আশা করছে ঢাকা

পেটের ভেতরে করে ইয়াবা পাচার করছে রোহিঙ্গারা

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিএইচটিএম বিভাগের ইফতার মাহফিল

চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি সাংবাদিকতা, কোণঠাসাও

ধর্ষণ: বেশি শিকার শিশুরা

মোদিকে বিএনপির অভিনন্দন

হালিম প্রতারণা !

শিক্ষক সমাজের জীবন্ত আদর্শ ও শিক্ষাগুরু কবি আফজল আহমদ বি.এ

কোনাখালী শতাধিক ভূমিহীন পরিবার পাচ্ছেন কৃষি খাসজমি

লংগদুতে মায়ের বকুনি সহ্য করতে নাপেয়ে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

চকরিয়া সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক বাঙ্গালী পাঠান আর নেই

মাতামুহুরী সেতু আবারো ভাঙনে জনদুর্ভোগ চরমে

খুটাখালীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন: বনভূমি কেটে বালু দস্যুদের সড়ক নির্মাণ

কক্সবাজার কারাগার থেকে ইয়াবা উদ্ধার

স্থানীয়রাও সমপরিমাণ সহায়তা পাবে : দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী

কুতুবদিয়া উপজেলা নির্বাচন ১৩ জুন: নিষ্পত্তি হয়নি চেয়ারম্যান পদের রুল

হোপ ফাউন্ডেশনের ‘আন্তর্জাতিক ফিস্টুলা নির্মূল দিবস উৎযাপন

খুরুশ্কুল ইউনিয়নের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

কর্ণফুলী নদীতে পাথরবোঝাই ‘সী-ক্রাউন’ জাহাজ ডুবি