নেই দৃশ্যমান ব্যবসা, তবু কোটিপতি!

শাহীন মাহমুদ রাসেল:
নিজের দৃশ্যমান কোন ব্যবসা নেই। বছরের পর বছর বেকার জীবন। তবু কোটিপতি। গড়েছেন ডুপ্লেক্স বাড়ি। চলাফেরা আলিশান। নাম তার আমজাদ হোসেন খোকন। বাড়ি ইয়াবা নগরী খ্যাত টেকনাফের উপকূলীয় বাহারছড়া শামলাপুরে। তিনি আবার সাধারণ কোন ব্যক্তি নন! করেন রাজনীতি। ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তার তকমাও রয়েছে।

যুবলীগ নেতা খোকনের পুরান পাড়া এলাকায় তার নির্মাণাধীন বাড়িটি সবার চোখ জুড়াচ্ছে। ভবন দেখে প্রশান্তি পেলেও এটি গড়ার উৎস সম্পর্কে ভাবতে গিয়ে কপাল ভাজ করছেন পাড়া-প্রতিবেশী।

লোকমুখে এপাড়া ওপাড়ায় তথ্যটি প্রকাশ পাবার পর যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের আয়ের উৎস খোঁজতে মাঠে নেমেছে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা। প্রাথমিক ভাবে টাকার উৎস সম্পর্কে লোমহর্ষক তথ্যও পেয়েছে তদন্ত দল।

তাদের তদন্তে বেরিয়ে এসেছে, বেকার এ যুবক পুরো ইউনিয়নে গড়ে তুলেছেন ইয়াবার সাম্রাজ্য। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ভোগান্তি এড়াতে মোটা অংকে কৌশলে ভাগিয়ে নিয়েছেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদটি। এমনটি অভিযোগ ইউনিয়ন যুবলীগ নেতাদের।

তথ্যে বেরিয়ে এসেছে, মাত্রাতিরিক্ত মাদক ব্যবসা থেকে যুব সমাজকে রক্ষায় ২০১৩ সালে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বাররা মাদককারবারির একটি তালিকা তৈরি করে আইন প্রশাসনের হাতে দিয়েছিলেন। উক্ত তালিকায় ইয়াবা ও মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে যুবলীগ সম্পাদক খোকনের নাম রয়েছে ৪ নাম্বারে।

উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার কাছে পাঠানো রেজুলেশনে বলা হয়, জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ইউনিয়ন পর্যায়ের চোরাকারবারি, ইয়াবা ব্যবসায়ীর তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তাদের কারণে সমাজের অপুর্ণনীয় ক্ষতি হচ্ছে। তদন্তপূর্বক তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া জরুরী।

আর ঐসময় তালিকাটি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ওসিকে নির্দেশনাও দেয়া হয়েছিল। কিন্তু অদ্যবধি খোকনসহ তালিকায় থাকা কোন ইয়াবা ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তবে তালিকার র্শীষে থাকা ইয়াবা ব্যবসায়ী হাবিব উল্লাহ প্রকাশ হাবা চৌধুরী পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছেন গতবছর। হাবিব উল্লাহ নিহত হবার পর খোকনসহ অনেকে আত্মগোপনে চলে যান। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবার পর আবার এলাকায় ফিরে এসে নতুন উদ্দমে ব্যবসা চালাচ্ছেন খোকনরা।

এলাকাবাসি জানিয়েছেন, খোকন নিজেকে জমি ব্যবসায়ী (মিডিয়াকারি) দাবি করলেও দৃশত তার কোন ব্যবসা নেই। মূলত ইয়াবা ব্যবসা আড়াল করতেই এমন প্রচারণা চালান তিনি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, খোকন বেকার যুবক। সকালে ঘুম থেকে বের হয়ে শামলাপুর বাজারে যুবলীগ কর্মীদের সাথে সময় কাটান তিনি। মাঝে মধ্যে টেকনাফ উপজেলায় তার ব্যবসায়ীক পার্টনার এবং যুবলীগ নেতাদের সাথে স্বাক্ষাত করতে যান। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীনতা বিরোধী মুসলিম লীগ নেতা এরশাদুর হক এশা মেম্বারের নাতি খোকন ও তার পরিবার এখন বড় আওয়ামীলীগার। দলের প্রভাব খাটিয়ে তারা নিজেদের আখের গোছাতে ব্যস্ত থাকেন।

এলাকাবাসির দেয়া তথ্য মতে, মিয়ানমার হতে সাগর পথে ইয়াবার চালান আসে শামলাপুর পুরান পাড়া ঘাটে। এখানে তার সহযোগিরা ইয়াবার চালান রিসিভ করে গোপন স্থানে জমান। পরে সুবিধা মতো সময়ে ঢাকাসহ দিশের বিভিন্ন স্থানে চালান করে দেয়া হয়।

বাহারছড়া ইউনিয়ন পরিষদ সূত্র জানায়, ২০১৩ সালে ২৫ সেপ্টম্বর জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় ইউনিয়ন ও উপজেলা ভিত্তিক মাদক ব্যবসায়ীর তালিকা প্রণয়নের জন্য জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশ দেয়া হয়। নির্দেশ মতে, ২০১৩ সালের ২০ অক্টোবর টেকনাফ বাহারছড়া ইউনিয়নের তৎকালিন চেয়ারম্যান মৌলভী হাবিব উল্লাহ’র সভাপতিত্বে জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ইউনিয়ন পর্যায়ে মাদক ব্যবসাীয়, চোরাকারবারি ও ইয়াবা ব্যবসায়ী ১০ জনের তালিকা করা হয়। উক্ত তালিকার ৪ নম্বারে নাম রয়েছে আমাজাদ হোসেন প্রকাশ খোকনের। তিনি শামলাপুর পুরান পাড়া এলাকার মো. ইসলাম ওরফে ইসলাম মেম্বারের ছেলে।

এ তালিকায় শীর্ষে থাকা নয়াপাড়া এলাকার হাবিব উল্লাহ প্রকাশ হাবা চৌধুরী (২০১৮ সালের শেষের দিকে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মারা যান) ছাড়াও তালিকায় রয়েছে পুরান পাড়ার মৃত এরশাদুল হকের ছেলে আজিজুল হক প্রকাশ আয়াছ কোম্পানী, শাপলাপুর বাজারের আক্তার ফার্মেসীর স্বাত্বাধিকারী মো. আক্তার, পুরান পাড়া এলাকার ডা. নজরুলের ছেলে মো. আরিফ, একই এলাকার মীর কাশেমের ছেলে মো. ইলিয়াছসহ ১০জন।

সাবেক চেয়ারম্যান মৌলভী হাবিব উল্লাহ বলেন, ২০১৩ সালের সেপ্টম্বর মাসে জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমার পরিষদ সদস্যরা একটি তালিকা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে পাঠিয়ে ছিলাম। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার কথা ছিল। তবে পরবর্তীতে আর কি হয়েছে আমি জানিনা।

ইয়াবার অভিযোগ ছাড়াও, খোকনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, ভূমিদস্যুতা, মারামারি, হত্যার হুমকিসহ নানা অভিযোগে অনেক ভূক্তভোগী থানায় সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেন। ২০১৩ সালের ২১ জুলাই অছি আহমদ (টেকনাফ থানা জিডি নং-৯৩৩/১৩)। ২০০৯ সালের ২ ডিসেম্বর মোর্শেদ আলী (৫৭/২০০৯)। ২০১০ সালে ৩ মে শামসুল আলম (১১৫/২০১০), ২০১১ সালের ১২ মে জাহেদুল ইসলাম (৫৮২/১১), ২০১০ সালে (৩০/২০১০)সহ আরো বেশ কয়েকটি অভিযোগ থানায় দেয়া হয়।

কিন্তু এলাকায় প্রতিপত্তি থাকায় আইনও তাদের ছুঁতে পারে না। আবার দলের যেকোন প্রোগ্রামে ‘ডোনার’ হিসেবে আবির্ভাব হন বলেই নিরাপদেই রয়েছেন আমজাদ হোসেন খোকনরা। তবে, এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় মাদক কারবার বন্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন সচেতন মহল।

অভিযোগ সম্পর্কে জানতে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে আমজাদ হোসেন খোকন তার বিরুদ্ধে আসা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আগে দৃশ্যমান কোন কাজ না করলেও বছর তিনেক পূর্ব হতে জমি বেচা-কেনা, ফিশিং ট্রলার ব্যবসাসহ হোটলে কক্স টুডে কর্তৃপক্ষের প্রতিষ্ঠান ‘সুইট ড্রীম’ কোম্পানীতে চাকুরিও রয়েছে তার। কোটি টাকার বাড়িটি শামলাপুর বাজারে বাবার জমি বিক্রির ২৫ লাখ টাকা, দুবাই প্রবাসী ভাইদের পাঠানো টাকা ও কক্সবাজার শহরে হাজিপাড়ায় বেশ কিছুদিন আগে কমদামে কেনা একটি জমি অধিক মূল্যদিয়ে বিক্রির টাকায় গড়ছেন। তার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসার অভিযোগ পূর্বশত্রুতার বহি:প্রকাশ বলে দাবি করেন তিনি।

তবে, বেকার জীবনে কক্সবাজার শহরে জমি কেনা, সাগরে ফিশিং ট্রলার নামানোসহ অন্যান্য ব্যবসার পূঁজি কোথা থেকে এলো, এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, বাবার দু’পরিবার থাকায় তিনি অল্প-স্বল্প পুঁজি দিয়েছেন।

তার হিসাব মতে, সবমিলিয়ে এখন কয়েক কোটি টাকার সম্পদ রয়েছে। এসবের বিপরীতে আয়কর সনদসহ অন্যকোন কাগজপত্র রয়েছে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, অসচেতনতার কারণে এসব করা হয়নি। তাদের এলাকায় পয়সাওয়ালা অনেকের এসব কাগজপত্র নেই। তাই তিনিও করার প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করেননি।

এছাড়াও তার যুবলীগের পদটি সম্মেলনের মাধ্যমে পাওয়া উল্লেখ করেন তিনি বলেন, আমার সম্পর্কে টেকনাফ উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও নব নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম এবং জেলা যুবলীগ সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর ভালই জানেন। তাদের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ করেন তিনি।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, আমরা পুরো টেকনাফের মাদক কারবারিদের নির্মূলে কাজ করছি। উপকূলীয় ইউনিয়নগুলোর প্রভাব পতিপত্তিশালীদের বিরুদ্ধে আসা অভিযোগ গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কেউ ছাড় পাবে না, সেভাবেই নির্দেশনা রয়েছে উপর মহলের।

সর্বশেষ সংবাদ

ছাত্রলীগ নেতা রায়হানের জামিন লাভ

লোহাগাড়ায় কার-মাহিন্দ্রা সংঘর্ষে নিহত ১: আহত ১৫

বর্ষার বিদায়ে বেদনার সুর বাজে

কোরবানির মাংস পেয়ে খুশিতে রোহিঙ্গা শিশুদের উচ্ছ্বাস!

চকরিয়ায় চিংড়ি জোনের শীর্ষ সন্ত্রাসী আল কুমাস গ্রেপ্তার

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন অনিশ্চিত : ট্রাস্কফোর্সের সভায় কোন সিদ্ধান্ত হয়নি

কোনোরকম যুদ্ধ ছাড়াই ভারতের ১১ যুদ্ধ বিমান বিধ্বস্ত!

লোহাগাড়ায় মেট্রেসের গোডাউনে আগুন

সিএমপি স্কুল এন্ড কলেজ : ‘মেধার সাথে ভালো মানুষ গড়ার পরিচর্চা করে’

ভারতে চিকিৎসা করাতে গিয়ে কলকাতা থেকে লাশ হয়ে ফিরল দুই বাংলাদেশী

মেসেঞ্জারের কথোপকথন শুনতো ফেসবুক কর্মীরা

কক্সবাজারে ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ একটু কমেছে : জেলায় ১৫৮ জন রোগী সনাক্ত

কাবুলে বিয়ে বাড়িতে বোমা হামলায় নিহত ৬৩

কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ সাবেক সেনা কর্মকর্তার

‘ডেঙ্গু মোকাবিলায় আগামী সপ্তাহটা চ্যালেঞ্জিং’

বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ হচ্ছে ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট

কাশ্মীর নিয়ে মোদির চতুর্মুখী নীলনকশা

খালেদার মুক্তিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে যাবে বিএনপি

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন: পদ প্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ

হাজিদের প্রথম ফিরতি ফ্লাইটে ৪১৮ যাত্রী দেশে পৌঁছেছে