এবার খুরুশ্কুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের সড়কের জমিতে ভবন নির্মাণ

শাহেদ মিজান, সিবিএন:
বাঁকখালী নদীর দখলবাজদের কোনোভাবেই থামানো যাচ্ছে না। তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের অ্যাকশান অব্যাহত থাকলেও বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দখলথাবা চালিয়ে যাচ্ছে এসব ভূমিদস্যুরা। তারা বাঁকখালী নদীর বিস্তীর্ণ অংশ দখল করে তৈরি করেছে পাকা স্থাপনা। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ এখনো অব্যাহত রয়েছে। তবে আশ্চর্য্যজনক হলেও সত্য, ভূমিদস্যুরা এবার খুরুশ্কুল আশ্রয় প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণ করা সড়কের জমি দখল করে নির্মাণ করছে পাকা স্থাপনা। শহরের কস্তুরাঘাট সংলগ্ন স্থানে এই অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। সরেজমিন পরিদর্শনের এই তথ্য জানা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাঁকখালী নদী কক্সবাজার শহর পয়েন্টে দীর্ঘদিন তীর দখল করে আসছে দখলবাজরা। সরকারি দল এবং প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এবং নাম ভাঙিয়ে এই দখলযজ্ঞ চালানো হচ্ছে। এভাবে দখল থাবায় নদীর বিস্তীর্ণ এলাকা দখল করে নিয়েছে দখলবাজরা। দখল করা জমিতে গড়ে তুলেছে বসতঘরসহ পাকা স্থাপনা। প্রশাসন বিভিন্ন সময় অভিযান চালালেও দখল দস্যুদের রোধ করা যায়নি। প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে অব্যাহত রাখে অবৈধ দখল। নাকের ডগায় এভাবে নদী দখল হলেও নানা কারণে কার্যকর এ্যাকশান নিতে পারছে না প্রশাসন। ফলে দখলবাজরা আরো বেপরোয়া একের পর এক দখল করে নিচ্ছে দখল নদীর অংশ। এভাবে দখলথাবার অংশ হিসেবে বর্তমানে শহরের কস্তুরাঘাট পয়েন্টে বিশাল অংশ দখল করে নিয়েছে দখলবাজরা। একইভাবে ৬নং ঘাট পয়েন্ট, পেশকার পাড়া পয়েন্ট, গোদারপাড়া পয়েন্ট, এসএমপাড়া পয়েন্ট অংশেও দখল করা হয়েছে নদীর তীর।

জেলা প্রশাসনের তথ্য সূত্রে জানা গেছে, খুরুশ্কুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের যাতায়াতের প্রধান সড়ক পড়েছে কস্তুরাঘাট পয়েন্টে। দীর্ঘ দুই বছর ধরে এই সড়কের নির্মাণ চলছে। এই সড়কের মূল অংশে উঠার জন্য রাখা হয়েছে দুইটি সংযোগ সড়ক। এর মধ্যে পশ্চিম-উত্তরে একটি। সেটি হবে এন্ডারসন সড়কের বদরমোকাম পয়েন্ট এবং অন্যটি হবে পূর্ব-উত্তরে। সেটি হবে এন্ডারসন সড়কের হোটেল গার্ডেন পয়েন্টে। এই জন্য অধিগ্রহণ কার্যক্রম শেষ পর্যায়ে রয়েছে। অধিগ্রহণের জন্য সীমানা নির্ধারণসহ প্রায় কার্যকম সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু প্রশাসনের এই অধিগ্রহণ আওতায় পড়ার পরও তা আমলে নিচ্ছে না পেশকার মৃত ইয়াকুব আলীর পুত্র ফরিদুল আলম ও ফজলুল করিম নামের দুই দখলবাজ। তারা হোটেল গার্ডেন পয়েন্টের সংযোগ সড়কের আওতায় পড়া জমি দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করছে। কয়েকদিন তারা এই স্থাপনা নির্মাণ কাজ চালাচ্ছে।

গতকাল সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, খুরুশ্কুল আশ্রয় প্রকল্পের গার্ডেন পয়েন্টের সংযোগ সড়কের অধিগ্রহণের আওতায় পড়া জমিতে পাকা ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ভবনের পিলার ঢালাই কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নির্মাণ কাজ নিয়োজিত রয়েছে ৮/১০ জন শ্রমিক। তারা রাত-দিন সমানতালে কাজ করছে। প্রশাসনকে ফাঁকি দিতে গভীর রাতে নির্মাণ কাজ করাসহ নানা কৌশলে জোরেসোরে কাজ চালাচ্ছে।

নির্মাণকাজ তদারকিতে নিয়োজিত এক ব্যক্তি জানান, ইট-কংক্রিটের ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। চারদিন ধরে এই কাজ চলছে। গুদাম হিসেবে ব্যবহারের জন্য এই ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। তবে আরেকটি তথ্যে জানা গেছে, অধিগ্রহণের আওতায় পড়লেও আইনী জটিলতা তৈরি করে কর্তৃপক্ষকে বেকায়দায় ফেলা এবং উচ্চ ক্ষতিপুরণ পেতে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অগ্রাহ্য করে ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে সরকার বিপুল আর্থিক ক্ষতি পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত ফজলুল করিম বলেন, ‘আশ্রয়ণ প্রকল্পের সড়কের অধিগ্রহণের আওতার পড়ার বিষয়টি আমাদের জানা নেই। তবে আমরা গুদামটি স্থায়ীভাবে নির্মাণ করছি না। আপাতত এটি নির্মাণ করছি। অধিগ্রহণে পড়লে আমরা ছেড়ে দিবো।’

সর্বশেষ সংবাদ

ছাত্রলীগ নেতা রায়হানের জামিন লাভ

লোহাগাড়ায় কার-মাহিন্দ্রা সংঘর্ষে নিহত ১: আহত ১৫

বর্ষার বিদায়ে বেদনার সুর বাজে

কোরবানির মাংস পেয়ে খুশিতে রোহিঙ্গা শিশুদের উচ্ছ্বাস!

চকরিয়ায় চিংড়ি জোনের শীর্ষ সন্ত্রাসী আল কুমাস গ্রেপ্তার

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন অনিশ্চিত : ট্রাস্কফোর্সের সভায় কোন সিদ্ধান্ত হয়নি

কোনোরকম যুদ্ধ ছাড়াই ভারতের ১১ যুদ্ধ বিমান বিধ্বস্ত!

লোহাগাড়ায় মেট্রেসের গোডাউনে আগুন

সিএমপি স্কুল এন্ড কলেজ : ‘মেধার সাথে ভালো মানুষ গড়ার পরিচর্চা করে’

ভারতে চিকিৎসা করাতে গিয়ে কলকাতা থেকে লাশ হয়ে ফিরল দুই বাংলাদেশী

মেসেঞ্জারের কথোপকথন শুনতো ফেসবুক কর্মীরা

কক্সবাজারে ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ একটু কমেছে : জেলায় ১৫৮ জন রোগী সনাক্ত

কাবুলে বিয়ে বাড়িতে বোমা হামলায় নিহত ৬৩

কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ সাবেক সেনা কর্মকর্তার

‘ডেঙ্গু মোকাবিলায় আগামী সপ্তাহটা চ্যালেঞ্জিং’

বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ হচ্ছে ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট

কাশ্মীর নিয়ে মোদির চতুর্মুখী নীলনকশা

খালেদার মুক্তিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে যাবে বিএনপি

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন: পদ প্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ

হাজিদের প্রথম ফিরতি ফ্লাইটে ৪১৮ যাত্রী দেশে পৌঁছেছে