তুমব্রু খালে এবার স্লুইচ গেইট নির্মাণ করছে মিয়ানমারঃ বিজিবি ও বিজিপির পতাকা বৈঠক সম্পন্ন

 

কায়সার হামিদ মানিক,উখিয়া :
এবার স্লুইচ গেইট নির্মাণ করছে মিয়ানমার। মিয়ানমার সীমান্তে তুমব্রু খালে পিলার ও স্লুইচ গেইট নির্মাণের কারণে শূন্যরেখার পাশাপাশি ঘুমধুম পানিতে তলিয়ে যাবে বলে দাবি স্থানীয়দের। দু’দেশের দুটি সীমান্ত বিওপি থাকা সত্ত্বেও চোরাচালান ও সন্ত্রাসী অনুপ্রবেশের দোহাই দিয়ে মূলত শূন্যরেখায় থাকা রোহিঙ্গাদের সরাতে এমন পাঁয়তারা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ রোহিঙ্গাদের।
বৃস্পতিবার বিজিবি ও বিজিপির মধ্যে পতাকা বৈঠকে স্থাপনা নিমার্ণের পরও দু’দেশের পানির গতিপথ স্বাভাবিক রাখার সিদ্ধান্ত হলেও, স্লুইচ গেইট পরিচালনার দায়িত্ব নিয়ে বিজিপির কাছে লিখিত চেয়েছে বিজিবি।
বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্তের তুমব্রু খাল। সেই খাল দিয়ে দু’দেশের পানি প্রবাহিত হয়। কিন্তু হঠাৎ করে চোরাচালান ও সন্ত্রাসী অনুপ্রবেশের দোহাই দিয়ে এইখালের উপর পিলার নিমার্ণ শুরু করে মিয়ানমার। যা দু’দেশের পানি প্রবাহকে বাধাগ্রস্ত করবে।
কিন্তু এব্যাপারে বারবার মিয়ানমারকে প্রতিবাদলিপি দেয়া হলেও কোন সাড়া দেয়নি। তবে তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায় থাকা রোহিঙ্গাদের দাবি, মূলত তাদেরকে শূন্যরেখা থেকে সরাতে খালের উপর এই স্থাপনা নিমার্ণ করা হয়েছে।
রোহিঙ্গাদের কয়েকজন জানায় তাদেরকে সরাতেই মূলত এটা করা হয়েছে। কেননা এই খাল ছাড়াও অন্য খাল খালি রয়েছে যেগুলোতে এই জাল দেওয়া হচ্ছে না, তাহলে সেগুলোতে কেনো ঘেরা দিচ্ছে না।’
স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানালেন, খালে পিলার ও স্লুইচ গেইট নিমার্ণের ফলে শূন্যরেখার পাশাপাশি ঘুমধুম পুরো ইউনিয়নের ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট ও ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে যাবে।
বান্দরবান নাইক্ষ্যংছড়ি ৩নং ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর আজিজ বলেন, ‘আগে পানি উঠলে ৭-৮ ঘণ্টার মধ্যে নেমে যেত। এখন পানি উঠলে ৮-১০ দিন থেকে যাবে। পুরো এলাকা প্লাবিত হবে।’
বৃহস্পতিবার দুপুরে এ বিষয়ে ঘুমধুম জিরো পয়েন্টে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে পতাকা বৈঠকে বসে বিজিবি ও মিয়ানমারের বিজিপি। দু’ঘন্টার বৈঠক শেষে স্থাপনা নিমার্ণের পরও দু’দেশের পানির গতিপথ স্বাভাবিক রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে স্লুইচ গেইট পরিচালনার দায়িত্ব নিয়ে বিজিপির কাছে লিখিত চেয়েছে বিজিবি।
কক্সবাজার বিজিবি ৩৪ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল আবু হায়দার আজাদ আহমেদ বলেন, এ ব্যাপারে মিয়ানমারের বিজিপির সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা পুরো কন্সট্রাকশনের ব্যাখা আমাদের দেবে।’
২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর থেকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের তুমব্রু জিরো পয়েন্টে অবস্থান করছে সাড়ে ৪ হাজার রোহিঙ্গা। আর ঘুমধুমে বসবাস করছে স্থানীয় ১০ হাজারের অধিক মানুষ।

cbn

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ২৭

পেকুয়ায় সংগ্রামের জুমে চলছে বালি উত্তোলন

B a n g a b a n d h u : The epic poet of politics

সদর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির উপর হামলার প্রতিবাদে জেলা ছাত্রলীগের মিছিল-সমাবেশ

দৈনিক সৈকত সম্পাদকের পিতা হাবিবুর রহমানের ৩৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

কক্সবাজার জেলা জয় বাংলা তথ্য-প্রযুক্তি লীগের আহবায়ক তুহিনের বিবৃতি

আজ শুভ জন্মাষ্টমী: কক্সবাজারে নানা আয়োজন

কক্সবাজার ইনার হুইল ক্লাবের শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

টেকনাফে যুবককে তুলে নিয়ে হত্যা করলো রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা

সব ধরনের মতামত প্রকাশের নিরাপত্তা আছে?

চীন বলেছে মধ্যস্থতার দায়িত্ব নিয়েছি : মায়ানমার কিন্তু মুখ খুলছেনা

যে মসজিদ নির্মাণে কাজ করে ২ লাখ ১০ হাজার শ্রমিক

সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশের জন্য কাজ করতে হবে

জেলা আ.লীগের চিকিৎসা ক্যাম্প শুক্রবার, চিকিৎসা পাবে ৫হাজার মানুষ

চকরিয়ায় দুই হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল আগুনে পুড়ে ধ্বংস

নিরহঙ্কার জীবন : মানবিক উৎকর্ষের চাবিকাঠি

JOB VACANCY ANNOUNCEMENT – HumaniTerra International (HTI)

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে সদ্যবিবাহিত যুবকের মৃত্যু ইসলামাবাদে

আগামী ১০ বছরে আপনি মারা যাবেন কিনা জানা যাবে ব্লাড টেস্টে!