প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত ১৩ জনকে আটক করেছে। গত ১০ এপ্রিল সকাল হতে ১১ এপ্রিল তারিখ সকাল পর্যন্ত অফিসার ইনচার্জ  মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার (পিপিএম) এর নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত)  মোহাম্মদ খায়রুজ্জামান, পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস্ এ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং),  মোঃ মাইন উদ্দিন, পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স) মোহাম্মদ আরিফ ইকবাল, এসআই রাশেদুল কবির, এসআই রাজীব চন্দ্র পোদ্দার, এসআই মোঃ আবুল কালাম, এএসআই মোৎ আবুল কাশেম, এসএসআই বাবুল দে, এএসআই মনিরুজ্জমান, এএসআই মোঃ ইমাম হোসেন, এএসআই নিজাম উদ্দিন, সঙ্গীয় ফোর্স এবং ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান খান সহ কক্সবাজার সদর মডেল থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১৩ জন আসামীকে গ্রেফতার করেন কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন
মোঃ হাবিবুর রহমান, পিতা-মতৃ আব্দুল মান্নান, সাং-সেক্টর-১১, রোড় নং-৭০, থানা-বনানী, জেলা-ডিএমপি, ঢাকা।
নুরুচ্ছবি, পিতা-মৃত মোক্তার ফকির, সাং-টেকপাড়া, ইসলামাবাদ, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
জাফর, পিতা-মৃত নজু মিয়া, সাং-টেকপাড়া, ইসলামাবাদ, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
আব্দুল ছালাম, পিতা-আব্দুল জব্বার, সাং-পূর্ব হাজী পাড়া, ইসলামাবাদ, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
মোঃ আবুল কাশেম, পিতা-আব্দুল জব্বার, সাং-পূর্ব হাজী পাড়া, ইসলামাবাদ, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
মোঃ আজিজুল হক, পিত-আলী হোসেন, সাং-পোকখালী, ০৫নং ওয়ার্ড, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, পিতা-মৃত আব্দুল্লাহ, সাং-উত্তর রুমালিয়ারছড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
শেখ আহম্মেদ, পিতা-আহাম্মদ হোসেন, সাং-সমিতি পাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
বাবুল, পিতা-আব্দুল শুক্কুর, সাং-কুলিয়া পাড়া, খুরুশকুল, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
লুৎফা, পিতা-ছৈয়দ ওমর, সাং-উত্তর মাইজ পাড়া, চৌফলদন্ডী, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
ছৈয়দ ওমর, পিতা-মৃত ইয়াকুব আলী, সাং-উত্তর মাইজ পাড়া, চৌফলদন্ডী, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
আনজু বেগম, স্বামী-ছৈয়দ ওমর, সাং-উত্তর মাইজ পাড়া, চৌফলদন্ডী, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
মোঃ সোহেল, পিত-আলী আহমদ, সাং-মনুপাড়া, খুরুশকুল, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ  মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার পিপিএম, তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাহাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এলাকার আম জনতা ও পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতের লক্ষ্যে মামলায় অভিযুক্ত ও চিহিৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •