মো: জাহেদুল ইসলাম (জাহেদ)
কক্সবাজারে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা ‘গায়েবি’ মামলা নিয়ে বাদীর বিরুদ্ধে বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর জামায়াত-বিএনপির ৯০জন নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় এ মামলা দায়ের করেন জনৈক সাইদুর রহমান ছৈয়দ নামের এক ব্যাক্তি। যার মামলা নং-৯০। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের অভিযোগ, মামলার বাদী পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে আসামীদের কাছ থেকে মাথা পিছু টাকা নিয়ে মোটা অংকের বাণিজ্য করেছে। তবে তারা বলছেন, মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে চলতি বছরের ৬ ফেব্রুয়ারী মামলাটি আপোষ-মিমাংসা করে ফেলছেন বাদী ছৈয়দ। যার জি.আর নং-১১০৮/২০১৮। এ নিয়ে দলের চরম ভাবমূর্তি ক্ষুন্নের পাশাপাশি স্থানীয় নেতার মাঝেও বিরাজ করছে চাপা ক্ষোভ। মামলার বাদী কক্সবাজার পৌর এলাকার পাহাড়তলীর মৃত গোলাম কবিরের ছেলে।
কক্সবাজার পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সেলিম ওয়াজেদ জানান, মামালার বাদী সাইদুর রহমান ছৈয়দ নিজেকে আওয়ামী লীগের সর্মথক দাবী করলেও আসলে সে ভিন্ন চরিত্রের লোক। তার দৃশ্যমান প্রমাণ হচ্ছে বিএনপি-জামায়াতের সাথে আপোষ করে দলের ভামূর্তি ক্ষুন্ন করা। কারণ গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর জামায়াত-বিএনপির ৯০জন নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দলীয় অফিসে অগ্নিসংযোগ হুমকি প্রদানের ঘটনায় মামলাদায়ের করেন। আসামীদের সাথে আতাঁত করে টাকার বিনিময়ে উক্ত মামলায় দোষীদের নির্দোষ দাবী করে গোপনে আাদালতে আপোষনামা প্রদান করেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে আমি অবগত নয়। যদি কেউ এ রকম কাজ করে থাকলে খুবই দু:খ জনক। এ ব্যাপারে খোঁজ খবর নিয়ে দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এ বিষয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার ফরিদ উদ্দিন জানান, গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর জামায়াত-বিএনপির ৯০জন নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন জনৈক সাইদুর রহমান ছৈয়দ নামের এক ব্যাক্তি। উক্ত মামলায় আদালতে এখনো চার্জশিট প্রদান করা হয়নি। তবে বাদী আসামীদের সাথে আপোষ মিমাংসা করছে কিনা আমি জানিনা।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •