নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
টেকনাফের সাবরাং হারিয়াখালী এলাকায় হাজি জহির আহমদ নামের ৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে সর্বস্ব লুটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা।
মাথা ও হাতে কোপাঘাতে রক্তাক্ত অবস্থায় ওই বৃদ্ধকে উদ্ধার করে স্বজনেরা কক্সবাজারের একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেছে। তার শরীরে বেশ কয়েকটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।
৬ এপ্রিল দুপুর ১২ টার দিকে টেকনাফের নয়াপাড়া বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে এই ঘটনাটি ঘটে।
ভিকটিম হাজি জহির আহমদ জানিয়েছেন, ১১ এপ্রিল তার মেয়ের বিয়ে। খরচ বাবদ লবণ বিক্রির অগ্রিম হিসেবে লবণ ব্যবসায়ী নুরুল আলমের কাছ থেকে সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়ে বাড়ি যাচ্ছিলেন। মাঝপথে স্থানীয় চিহ্নিত দুর্বৃত্তরা তার গতিরোধ করে কুপিয়ে-পিটিয়ে পকেটে থাকা নগদ সাড়ে ৩ লাখ টাকাসহ অন্যান্য সরঞ্জাম লুট করে নিয়ে যায়। বেদম মারধর করে থেতলে দেয় পুরো শরীর। মাথায় কুপাঘাত ও দুই হাত ভেঙে দেয়া হয় এই বৃদ্ধের। তাকে গুরুতর রক্তাক্ত করে মাটিতে ফেলে চলে যায় দুর্বৃত্তরা।
তিনি জানান, স্থানীয় মৃত অলি আহমদের ছেলে হত্যা মামলার আসামি আব্দুর রশিদ প্রকাশ ডাইলা, তার ছেলে লাল মিয়া প্রকাশ লালু ও অলি আহমদ প্রকাশ অলি সশস্ত্র হামলার ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত।
পূর্ব পরিকল্পিতভাবে টাকা ছিনিয়ে নেয়ার উদ্দেশ্যে তারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে দৃঢ়তার সাথে জানান ভিকটিম হাজি জহির আহমদ। তিনি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন।
স্থানীয় কবির আহমদ, ফরিদ আহমদ ও নুরুল ইসলামসহ অনেকে জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা নানা অপরাধের সাথে জড়িত। তাদের কারণে এলাকার শান্তিশৃঙ্খলা নষ্ট হচ্ছে। নৃশংস হামলার ঘটনার অন্যতম নায়ক আব্দুর রশিদ ওরফে ডাইলার বিরুদ্ধে হত্যা মামলাসহ অনেক অভিযোগ রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি স্থানীয়দের।
টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ঘটনার বিষয়ে কেউ পুলিশকে অভিযোগ করেনি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। কোন অপরাধীর ছাড় নাই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •