মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

শরনার্থী ত্রান ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ের হেলথ ডিভিশনের চীফ ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা এইচ.এম সাঁচি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সোমবার ৮ এপ্রিল এশারের নামাজের পর অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশাল নামাজে জানাজায় ইমামতি করেন-মরহুমের ভ্রাতুষ্পুত্র হাফেজ রাফে। জানাজার আগে এডভোকেট এস্তাফিজুর রহমানের সন্ঞ্চালনায় বক্তৃতা করেন-কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতি’র সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ইকবালুর রশিদ আমিন সোহেল, জোয়ারিয়ানালা ইউপি চেয়ারম্যান কামাল শামশুদ্দিন আহমেদ প্রিন্স, কাজী মুজিবুর রহমান বেলাল, মাস্টার শহীদুল্লাহ, আবছার কামাল সিকদার ও মরহুমের সন্তান বিশিষ্ট দন্ত চিকিৎসক ডাঃ সামাউন নুর। বিশাল নামাজে জানাজা শেষে পূর্ব জোয়ারিনালা সিকদারপাড়া (মিনার বাপের মসজিদ) জামে মসজিদ সংলগ্ন পারিবারিক কবরস্থানে পিতা-মাতার কবরের পাশে সবার প্রিয় ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। বিষয়টি জোয়ারিয়ানালা থেকে মরহুমের ঘনিষ্ঠজন ও জোয়ারিয়ানালার বাসিন্দা মাওলানা মুহাম্মদ খালেদ সাইফী সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। এর আগে একইদিন আসরের নামাজের পর কক্সবাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদগাহ ময়দান জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা হাফেজ আবদুল কাইয়ুমের ইমামতিতে ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এখানে প্রথম জানাজার পূর্বে মরহুমের বণাঢ্য জীবনের স্মৃতিচারণ করে বক্তৃতা করেন-শরনার্থী ত্রান ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম (অতিরিক্ত সচিব), বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের মহাপরিচালক আলহাজ্ব এ.এম সিরাজুল ইসলাম, কক্সবাজার পৌরসভা মেয়র মুজিবুর রহমান, কউক চেয়ারম্যান লে: কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ, জেলা বিএমএ’র-সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মাহবুবুর রহমান, মরহুমের একমাত্র পুত্র ডাঃ সামাউন নুর। উভয় জানাজার নামাজে বক্তারা ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলের বহুমুখী গুনাবলীর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে সবাই শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েন। তাঁর আকস্মিক মৃত্যুতে কক্সবাজারের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে বলে বক্তারা উল্লেখ করেন। দ্বিতীয় জানাজার পর প্রশংশিত জনপ্রতিনিধি, দক্ষ সংগঠক সবার প্রিয়মুখ ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল’কে চোখের জলে চিরবিদায় জানায় হাজার হাজার জনতা। এ দৃশ্য নাদেখলে বুঝা যাবেনা। কি এক করুণ ও হৃদয়নিংড়ানো ভালবাসা জানানোর শেষ দৃশ্য। ভালোবাসা আর আবেগের কাছে মানুষের মন যে কতো অসহায় ডাঃ বুলবুলের নামাজে জানাজার মাঠে সেটা উপলদ্ধি হয়েছে। মানুষের স্রোত যেন থামবার নয়। মানুষ আসছে আর আসছে। উপছে পড়া ভীড় ঠেলে তখনো অসংখ্য মানুষ তাদের প্রিয়জন ডাঃ বুলবুলের নিথর নিষ্প্রাণ মুখটি শেষবারের মতো একটু দেখার জন্য পঙ্গপালের মতো ছুটে আসছিল। আর সবই বলছিল-হায় বুলবুল! হায় বুলবুল! সবার একটি কথা জোয়ারিয়ানালার বাতিঘরের আলো ছড়ানো চিরতরে বন্ধ হয়ে গেলো। জানাজায় অংশ নেয়া অনেকেই বলেছেন-সমসাময়িককালে এ অন্ঞ্চলে এটা ছিল মানুষের উপস্থিতির দিক থেকে স্মরণকালের বৃহত্তম জানাজা। পরোপকারী, সদা হাস্যউজ্জ্বল, ডাঃ বুলবুল হয়ত জীবদ্দশায় জানতেননা তাঁর এলাকার সহজ সরল মানুষগুলো তাঁকে নিজের অজান্তে কত বেশী ভালোবেসে ফেলেছে? তিনি যে চির বিদায় নেবেন সেটা কেউ কল্পনাও করেননি। সবাই মেনে নিতে পারছেননা ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলের আকষ্মিক এই চলে য়াওয়াকে। সবাই বলছিলেন, এই মানুষটির আমাদের বড় বেশী প্রয়োজন ছিল। কিন্তু মহান আল্লাহতায়লার কাছে ডাঃ বুলবুলকে নিয়ে যাওয়াটাকে আল্লাহ শ্রেয় মনে করেছেন, সেই বিশ্বাসে সবাই মেনে নিতে চাইলেও আবেগী মনতো আর সেটা কোনভাবেই মানতে চায়না। বিশাল দু’টি জানাজা প্রমান করেছে ডাঃ বুলবুল কতো বেশী জনপ্রিয়, সংগঠক ও জনবান্ধব মানুষ ছিলেন। বহুগুনে গুনান্বিত ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল’র বণাঢ্য জীবনের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বক্তা ও শ্রোতারা সকলেই কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এসময় জানাজার ময়দানে এক হৃদয় বিদারক করুণ দৃশ্যের অবতারণা হয়।
রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান, বিএমএ কক্সবাজার জেলার কোষাধ্যক্ষ-ডাঃ।বুলবুল সবার কাছে অত্যন্ত স্বজ্জ্বন, অমায়িক, বন্ধুবৎসল, সদালাপী, নিরহংকার ব্যক্তি হিসাবে সবার কাছে সুপরিচিত ছিলেন। তার সহধর্মিনী ডাঃ শামীম আরা নুর শরনার্থী ত্রান ও প্রত্যাবাসন অফিসের স্বাস্থ্য বিভাগ-এর একজন সিনিয়র মেডিকাল অফিসার। জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের পূর্ব জোয়ারিয়ানালার সিকদার পাড়ার ঐতিহ্যবাহী সম্ভ্রান্ত পরিবারের বিশিষ্ট জমিদার মরহুম আজম উল্লাহ্ সিকদারের দৌহিত্র এবং মরহুম আহমদ কবির চৌধুরী ও মরহুমা ফাহমিদা বেগম দম্পতির একমাত্র পুত্র সন্তান ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল তিন কন্যা ও এক পুত্র সন্তানের গর্বিত জনক। সন্তানদের মধ্যে প্রথম কন্যা ইন্ঞ্জিনিয়ার সাদিয়া নুুর বিবাহিত ও সৌদীআরব প্রবাসী। দ্বিতীয় কন্যা ডাঃ সাবিরিনা নুর কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার, একমাত্র পুত্রসন্তান ডাঃ সামাউন নুর একজন দন্ত চিকিৎসক ও কনিষ্ঠ কন্যা সানজিলা নুর কক্সবাজার সিটি কলেজে অনার্সে তৃতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত। প্রসঙ্গত, ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল সোমবার ৮ এপ্রিল সকাল পৌনে ৯ টার দিকে কক্সবাজার শহরের হলিডে মোড়ের একটু দক্ষিণে ভাড়া বাসায় স্ট্রোক করলে তাঁকে সেখান থেকে তাৎক্ষনিক কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে সেখানে মৃত ঘোষনা করেন। অত্যন্ত মেধাবী ও চৌকষ গুনাবলী সম্পন্ন ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৭৪ সালের কৃতি ছাত্র এবং চট্টগ্রাম মেডিকাল কলেজ হতে ২১ তম ব্যাচে কৃতিত্বের সাথে এমবিবিএস ডিগ্রী অর্জন করে নিজেকে চিকিৎসা পেশায় নিবেদিত করেন। কক্সবাজার বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের কোষাধ্যক্ষ মরহুম ডাঃ বুলবুল কক্সবাজার শহরের পুরাতন পান বাজার রোডে ‘ডক্টর কেয়ার’ নামক একটি দাতব্য চিকিৎসালয় খুলে দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি ও তাঁর সহধর্মিনী ডাঃ শামীম আরা নুর নামমাত্র মূল্যে, ক্ষেত্রবিশেষে বিনামূল্যে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতেন। কক্সবাজার ইসলামিয়া আদর্শ বালিকা মাদ্রাসার সহ সভাপতি ডাঃ বুলবুল কক্সবাজার পৌরসভার মেডিকেল অফিসারেরও সফলভাবে দায়িত্বপালন করেন।
জানাজার মাঠে বক্তারা মরহুমকে একজন নির্লোভ ও ত্যাগী সমাজকর্মী হিসাবে মূল্যায়ন পূর্বক তাঁর অবদান সবার কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে উল্লেখ করে বলেন-ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলের আকস্মিক চলে যাওয়া আমাদের সকলের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি। যে শূন্যতা সহজে পূরণ হবার নয়। বিদায়, চির বিদায় হে গণমানুষের হৃদয়ের মনিকোটায় স্থান করে নেয়া চিকিৎসক ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল। চিরনিদ্রায় ভাল থেকো আমাদের পরম শ্রদ্ধেয় ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল। শেষ বিচারের দিনে দেখা হবে হে আল্লাহতালার প্রিয় বান্দা ডাঃ আবদুর নুর বুলবুল আপনার সাথে। মহান আল্লাহ রাব্বুলআলামিন ডাঃ আবদুর নুর বুলবুলের বণাঢ্য কর্মময় জীবনকে কবুল করে নিয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসে স্থায়ী ঠিকানা করে দিন। আমিন! চুম্মা আমিন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •