অনলাইন ডেস্ক : ১২ বছরের কর্মজীবনে ৫ হাজার শিশু অদল-বদল করেছেন তিনি! আর এ কাজটি করেছেন নিছক মজার করে! মৃত্যুশয্যায় এমন স্বীকারোক্তি দিলেন এক নার্স। এ খবর দিয়েছে জাম্বিয়া অবজারভার নামক একটি পত্রিকা।

আফ্রিকার জাম্বিয়ার ইউনিভার্সিটি টিচিং হাসপাতালের প্রসূতি ওয়ার্ডের ওই নার্সের নাম এলিজাবেথ মুয়েআ।

বর্তমানে মরণরোগ ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি। নিজের এই কৃতকর্মের জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন ওই সেবিকা।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে এ প্রসঙ্গে জাম্বিয়ার অবজারভারকে দেয়া সাক্ষাৎকারে মুয়েআ বলেন, আমি খুব শিগগিরই মারা যাব। তবে মারা যাওয়ার আগে আমি আমার অপরাধ স্বীকার করতে চাই। বিশেষ করে ঈশ্বরের কাছে এবং সেইসব লোকদের কাছে যারা ইউনিভার্সিটি টিচিং হাসপাতালে সন্তান জন্ম দিয়েছেন।

শয্যাশায়ী ওই বৃদ্ধা নার্স বলেন ‘আমি ১৯৮৩ থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত অন্তত ৫ হাজার শিশুকে অদল-বদল করেছি। কোনো কিছুর লাভে এটা করিনি। স্রেফ মজা করতে এই ঘৃণ্য কাজ করেছি আমি। আমি এখন অনুতপ্ত। আমি চাই ঈশ্বর এবং জাম্বিয়ানরা আমাকে ক্ষমা করুক’।

তিনি আরও বলেন, ‘আমার কারণে অনেকেই তাদের সত্যিকারের মায়ের আদর পাননি। অনেক মা নিজের শিশুর বদলে দুধ পান করিয়েছেন অন্যের শিশুকে। আমি এ অপরাধের জন্য নরকে যেতে চাই না। দয়া করে আমাকে মাফ করে দিন।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •