ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
এ্যারাবিয়ান বারবিকিউ, রেস্তোরাঁ এন্ড বিরানী হাউস। কক্স সিটি সেন্টার (পুরাতন এস আলম কাউন্টার) সংলগ্ন এলাকায় প্রতিষ্ঠানটি যাত্রা করেছে সবেমাত্র। দেখতে ‘খুব ফিটফাট’ মনে হলেও শুরুতেই রেস্তোরাঁটির বিরুদ্ধে অভিযোগ বিস্তর। ‘তরতাজার’ আড়ালে পচা-বাসি বিরিয়ানি বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। খাবার তৈরিতে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার, কর্মচারীদের অসন্তোষজনক আচরণ ধরা পড়েছে ভোক্তাদের কাছে।
তিনদিন আগে ৮০ টাকা দরে ৩২০ টাকায় চারটি ‘চিকেন বিরিয়ানি’র প্যাকেট কিনেছিলেন কক্সবাজার পেশকার পাড়ার এক মহিলা। তিনি বাসায় গিয়ে খুলে দেখেন, চার প্যাকেট থেকেই গন্ধ বের হচ্ছে। শখ করে নেয়া বিরিয়ানি খেতে পারেননি। দুঃখের সাথে ডাস্টবিনে ফেলে দিতে হয়েছে। অভিযোগ হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানালেও পাত্তাই দেয়নি।
একই অভিযোগ, ইসলামিক ফাউন্ডেশন কক্সবাজার অফিসের সিনিয়র এক কর্মকর্তার।
তিনি পচা-বাসি খাবার বিক্রিকারী এই রেস্তোরাঁর বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তুলেছেন।
এ্যারাবিয়ান বারবিকিউ, রেস্তোরাঁ এন্ড বিরানী হাউস-এর জায়গায় আগে ছিল ‘স্বাদ’ নামের আরেকটি খাবার প্রতিষ্ঠান। তাদের বিরুদ্ধেও ছিল একই ধরণের অভিযোগ। স্বাদ-এর গোডাউনে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েছিল প্রশাসন। অবশেষে টিকতে না পেরে তারা প্রতিষ্ঠানটি গুটিয়ে নেয়।
এ প্রসঙ্গে এ্যারাবিয়ান বারবিকিউ, রেস্তোরাঁ এন্ড বিরানী হাউসের ব্যবস্থাপক ইমাম হোসাইনের সাথে যোগাযোগ করলে জানান, ওইদিন তিনি ডিউটিতে ছিলেন না। বিষয়টি জানার পরে সবাইকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।
তবে তিনি এও মন্তব্য করেন, খাবার প্রতিষ্ঠানগুলোতে মাঝেমধ্যে দু’একটি এরকম ভুল হয়েই থাকে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •