মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

শুধুমাত্র আইন প্রয়োগ করে পুরোপুরি মাদক ও জঙ্গী নির্মূল করা কখনো সম্ভব নয়। শতভাগ মাদকমুক্ত সমাজ গঠন করতে হলে, আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সামাজিক আন্দোলন ও সর্বস্তরে গণসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। যে তরুন সমাজ চাইলে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেশের চেহারা পাল্টে দিতে পারে, সে তরুণেদেরকেই সামাজিকভাবে গণসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে গণজাগরণ সৃষ্টি করতে হবে। তরুণদেরকেই আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সহায়ক শক্তি হিসাবে কাজ করতে হবে। শিক্ষার্থীদের পড়া লেখার পাশাপাশি গণসচেতনতা মূলক সামাজিক, কল্যাণকর ও গঠনমূলক কর্মকান্ডে অংশ নিতে হবে। মাদকের সাথে সম্পৃক্তদের ঘৃণা ও সামাজিক ভাবে বয়কট করতে হবে।

“মাদক ব্যবসা হবে নিঃশেষ, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ”-এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার ৪ এপ্রিল সকালে কক্সবাজার বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমীতে ‘মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে তারুণ্যের ভূমিকা শীর্ষক’ এক আলোচনা সভা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজারের স্বনামধন্য পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম একথা বলেন। কক্সবাজার বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমী’র প্রধান শিক্ষক মোঃ ছৈয়দ করিমের সভাপতিত্বে কক্সবাজার জেলা পুলিশের উদ্যোগে ইউএনডিপি-র কমিউনিটি রিকভারী এন্ড রেসিলেন্স প্রজেক্টের সহযোগিতায় এ ব্যতিক্রমী আলোচনা সভা ও কুইজ প্রতিযোগিতায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন-অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ও জেলা পুলিশের মুখপাত্র মুহাম্মদ ইকবাল হোসাইন এবং জেলা শিক্ষা অফিসার সালেহ আহামেদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন-জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট আমজাদ হোসেন, কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহানা আক্তার পাখি, কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার প্রমুখ। কক্সবাজার ভিত্তিক সংগঠন বেটার ইনেয়েশিয়েটিভ ফর বাংলাদেশ-বিআইবি’র সভাপতি তানভীর আহমেদ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন। প্রধান অতিথি কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম বলেন-এধরনের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মাদক ও জঙ্গী তৎপরতার বিরুদ্ধে তরুণ সমাজকে জাগিয়ে তুলতে পারবো, সমাজকে মাদক ও জঙ্গীমুক্ত করতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে তিনি দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এসপি এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম আরো বলেন-কক্সবাজার জেলা পুলিশ এধরণের গঠনমূলক সামাজিক কর্মকান্ডে সহযোগিতা করতে সবসময় প্রস্তুত। এ অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ও জেলা পুলিশের মুখপাত্র মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন বিআইবি’র এ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন-এ আলোচনা সভা ও কুইজ প্রতিযোগিতা তরুণ সমাজের মধ্যে মাদক নির্মুল ও জঙ্গী দমনে সচেতনেতা সৃষ্টিতে ব্যাপক অবদান রাখবে এবং এর মাধ্যমে কক্সবাজারকে বাংলাদেশ তথা বিশ্বের মাঝে পরিচয় করিয়ে দিতে সক্ষম হবে। এ মহৎ অনুষ্ঠান তরুণ সমাজের কাছে মাদক ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে একটা ইতিবাচক ম্যাসেজ পৌঁছাবে বলে এডিশনাল এসপি মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন তাঁর বক্তব্যে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ২৪ জন শিক্ষার্থীকে ক্রেস্ট, অর্থ ও স্কুলব্যাগ দিয়ে পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানে জেলা সদরের ২০ টি মাধ্যমিক স্কুলের প্রায় দেড়হাজার শিক্ষার্থী অংশ নেন বলে আয়েজকেরা জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •