শাহীন মাহমুদ রাসেল:
রামু উপজেলায় সকাল থেকেই ভোটারের উপস্থিতি ছিল কম। অনেকে ইচ্ছা থাকলেও সহিংসতার আতঙ্কে ভোট দিতে যায়নি। আবার অনেকে দল বেঁধে একযোগে গেছে ভোট দিতে। তবে অধিকাংশ ভোটকেন্দ্রের সামনে উপস্থিত ছিল আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষের লোক তেমন দেখা যায়নি।

দক্ষিণ মিঠাছড়ি স্কুল রোডের বাসিন্দা রিকশাচালক করিম বলেন, ইচ্ছা থাকলেও বোমের ভয়ে পরিবারের সবাইরে নিয়ে ভোটকেন্দ্রে যেতে ভয় পাচ্ছি। দেখি বেলা বাড়ার সাথে সাথে পরিস্থিতি কী হয়।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উত্তর ফঁতেখারকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দিতে আসা বাবেয়া খাতুন বলেন, আতঙ্কের মধ্যেই জীবনের প্রথম ভোট দিতে এলাম। প্রথমে বাড়ি থেকে কেউ আসতে দিতে চাচ্ছিল না। পরে বাবার সাথে এসেছি। বেলা তিনটার দিকে অনেককে পরিবার-পরিজন নিয়ে ভোট দিতে যেতে দেখা গেছে।

রামু জোয়ারিয়ানালার বাসিন্দা সারমিন সুলতানা তাঁর মা-বাবা, বড় ভাই ও ভাবির সঙ্গে জোয়ারিয়ানালা হাই স্কুলকেন্দ্রে ভোট দিতে আসেন। তিনি বলেন, সকাল থেকে টিভির সামনে বসেছিলাম। বিভিন্ন স্থানে সহিংসতার খবর শুনে আতঙ্কে ছিল সবাই। তাই একটু বেলা করে সবাইকে নিয়ে ভোট দিতে এসেছি।

ভোটারদের উপস্থিতি কম থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে মিঠাছড়ি কেন্দ্রের সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার বিকাশ চন্দ্র সাহা বলেন, নির্বাচনে ভোটারদের আগ্রহ নেই। ভোট দিতে তারা না আসলে আমরা কি করবো?

ভোট দিতে আসা আবুল হোসেন বলেন, ভোটারদের মধ্যে আগের মতো নির্বাচন নিয়ে উৎসাহ নেই। বরং জাতীয় নির্বাচনের মতো এ নির্বাচন নিয়েও ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

রামু উপজেলার বিভিন্ন কেন্দ্রের ভোটার উপস্থিতির বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে ভোটার উপস্থিতি স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক কম।

রবিবার (২৪ মার্চ) সকাল ৮টায় উপজেলার মোট ৬১টি ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণ আরম্ভ হয়েছে।

উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১লাখ ৫৮ হাজার ১৮ জন। সেখানে ৮১ হাজার ৪১০ জন পুরুষ এবং ৭৬ হাজার ৬০৮ নারী ভোটার।
নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুইজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী রয়েছে।

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি, বর্তমান চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সোহেল সরওয়ার কাজল (আনারস) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন- বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান আলী হোসেন (টিউবওয়েল), উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও রামু উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি সালাহ উদ্দিন (তালা), ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক হেলাল উদ্দিন (উড়োজাহাজ) এবং আওয়ামীলীগ নেতা আবদুল্লাহ সিকদার (চশমা)।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন- কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ও সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মুসরাত জাহান মুন্নি (প্রজাপতি), রামু উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনোয়ারা ইসলাম নেভি (ফুটবল) এবং উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি আফসানা জেসমিন পপি (কলসি)।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •