সংবাদদাতা:

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে গত কয়েক বছর ধরে অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যায় অপহরণ। দফায় দফায় অপহরণের পর মুক্তিপণ নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার ঘটনা অনেক। আতংক বিরাজ করছিল ঈদগাওর পাহাড় ঘেষা গ্রাম গুলোতে। এমনকি বাড়ি ছেড়ে অন্যত্রে চলেও গিয়েছিল অনেকে। ঠিক এ সময় প্রশাসনকে সাথে নিয়ে শুরু করে অপহরণ চক্র বিরুধী অভিযান। সমস্ত ভয় ছুড়ে ফেলে তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল এক সাহসী যুবক। রাত্রে না ঘুমিয়ে পাহারা দিতে শুরু করে
দিনের পর দিন। অবশেষে কয়েকজন অপহরণকারীদের ধরতে সক্ষমও হয়েছিল তৎকালিন আইসি খাইরুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ প্রশাসন। যাদের অন্যতম বিখ্যাত ডাকাত লাল পুতু ও চিকন বডি। যা ঈদগাওতে বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে রয়েছে। তিনিই হলেন আজকের ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী কাইয়ুম উদ্দিন। সরাসরি জনতার পাহারাদারের ভুমিকায় যার বেড়ে উঠা। নির্বাচিত প্রতিনিধি কিংবা আজকের প্রার্থীদের সেদিন কোন ভুমিকায় দেখা যায় নি। কিন্তু কাইয়ুম উদ্দিন বিভিন্ন হুমকির মুখে পড়েও থমকে যায়নি সেইদিন। নিজের উপস্থিতিতে পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে সন্ত্রাসীদের আটক করতে সক্ষম হওয়ায় অনেকটা স্বস্তিতে ছিল এলাকাবাসী। কাইয়ুম উদ্দিন বলেন, দলের বড় পদে থেকে জনগণের প্রতিনিধি হতে আসিনি। বরং সকলের পরামর্শে অতিতের মত তাদের সেবক হতে মাঠে নেমেছি। তবে নির্বাচিত হয় বা না হয় কথায় নয়, স্ব-শরীরে আপনাদের পাশে থাকবো। আর যদি চশমা প্রতিক নিয়ে নির্বাচিত হয় অন্তত জনপ্রতিনিধি হিসাবে সকল দায়ভার কাদে নিব ইনশাআল্লাহ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •