এম বশির উল্লাহ, মহেশখালী:
মহেশখালী উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী (কলস) মনোয়ারা কাজলের উপর হামলার ঘটনায় অবশেষে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলা রুজু হয়েছে। এ মামলায় ৬জনের নাম উল্লেখ সহ অারো ১৪/১৫ জনকে অজ্ঞাত করে মামলা দায়ের করেন তিনি।

মামলার এজাহার সুত্রে জানাযায়, গত ১১মার্চ সন্ধ্যায় মহেশখালী পৌরসভার বানিয়ার দোকানে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিক কলসি মার্কার লিফলেট নিয়ে প্রচারনা চালানোর সময় স্থানী পূর্ব জাগিরাঘোনা এলাকার জেবল হোসেন এর পুত্র অামান উল্লাহর নেতৃত্বে হামলা চালায় বলে অভিযোগ করেন। এ ঘটনার ৬ দিন পর অবশেষে পূর্ব জাগিরাঘোনা গ্রামের জেবল হোসেনের এর পুত্র অামান উল্লাহ(৩৮)কে প্রধান অাসামী করে একই এলাকার কবির অাহাম্মদের পুত্র রহিম বকসু(৩০), ফজল করিমের পুত্র মোজাম্মেল(৩৫), ইসলামের পুত্র অাব্দুল গফুর(৩৩), লাল মোহাম্মদের পুত্র শফিউল অালম(৩৫),মৃত জাফর অাহাম্মদের পুত্র অাহছান(৩০) কে আসামী করা হয়েছে।

মহেশখালী থানার সেকেন্ড অফিসার সাব-ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ মঞ্জুরুল হক জানান, মামলার ধার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন অাইনের ২০০০(সংশোধনী/২০০৩)এর ১০ ধারা, তৎসহ ১৪৩/৩০৭/৩২৩/৩৭৯/৫০৬/(২) পেনাল কোড ১৮৬০.যৌন পীডন সহ বে অাইনী জনতায় দলবব্ধ হইয়া হত্যার উদ্দোশ্য মারধর করিয়া সাধারন জখম,চুরি ও ভয়ভিতি প্রদর্শন করার অপরাধ।

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ারা কাজল প্রার্থী ভোট চাইতে গেলে বেশ কয়জন যুবক প্রার্থীকে বাধা দেয়, তারা মুলত বলেন যে, এই এলাকায় আপনার ভোট চাওয়ার অধিকার নেই। এক পর্যায়ে ভোটার ও প্রার্থীর সাথে হাতাহাতি হয়।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •