cbn  

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত ১৭ জনকে আটক করেছে। গত ১৫ মার্চ হতে ১৬ মার্চ পর্যন্ত অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার (পিপিএম) এর নেতৃত্বে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ খায়রুজ্জামান, পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস্ এ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং), মোঃ মাইন উদ্দিন, পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স) জনাব মোহাম্মদ আরিফ ইকবাল, এসআই আনছারুল হক, এসআই সনৎ বড়ুয়া, এসআই আরিফ উল্লাহ, এএসআই আবুল কাশেম, এএসআই কামাল হোসেন (২), এএসআই আবুল কাশেম, সঙ্গীয় ফোর্স এবং ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান খান সহ কক্সবাজার সদর মডেল থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১৭ জন আসামীকে গ্রেফতার করেন কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন
১। মোঃ শহিদুল্লাহ প্রঃ শহিদ (৩০)পিতা-মোঃ আব্দুল নবী,সাং-রাজারকুল,
২। মোঃ সোহেল(২৫)পিতা-মোঃ নুরু ইসলাম,সাং-পঞ্জখানা,ঘোনাপাড়া,
৩। মোঃ রবিউল হাসান প্রঃ রবিউল (১৯),পিতা-মোঃফজলুল হক, সাং-ঘোনার পাড়া,
৪। মোঃ আফছার কামাল প্রঃ আফছার(২০),পিতা- মৃত আলী হোসেন, সাং-পঞ্জখানা,ছাকালিয়া কাটা,
৫। মোঃ সালামুত উল্লা(২৫)পিতা-মোঃ কবির আহমদ, সাং-পশ্চিম মেরুলন্টা,
৬। মোঃ জাকির হোসেন (৩২) পিতা-মৃত মাহামুদ হোসেন, সাং-পঞ্জখানা,ঘোনাপাড়া,
৭। মোঃ রুবেল(২২)পিতা- নুরুল ইসলাম,সাং-পঞ্জখানা, ঘোনাপাড়া,
৮। মোঃ আব্দুল হাকিম(৩৭)পিতা-মোঃ শফি,সাং-পঞ্জখানা,ঘোনা,
৯। মোঃ ইব্রাহিম প্রঃ কালু(২৬)পিত-মৃত মোঃ আঃ করিম, সাং-ছাগোলিয়া কাটা,
১০। মোহাম্মদ হোসেন(৩০)পিতা-মৃত আমির হোসেন, সাং-পঞ্জখানা ঘোনাপাড়া,
১১। মোঃ রায়হান উদ্দিন(১৯)পিতা-মৃত বজল আহমেদ, সাং-পঞ্জখানা,ঘোনাপাড়া,সর্বথানা-রামু,
জেলা-কক্সবাজার।
১২। মোঃ রাসেল, পিতা-মাহাবুব, সাং-ইসলামাবাদ, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১৩। মোঃ হোসেন, পিতা-নুর মোহাম্মদ, সাং-কুলিয়াপাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১৪। মোঃ আজিজ, পিতা-মমতাজ, সাং-কুলিয়াপাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১৫। মোঃ দিলদার, পিতা-মমতাজ, সাং-কুলিয়াপাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১৬। সাদ্দাম হোসাইন, পিতা-ইমাম শরীফ, সাং-পূর্ব মুহুরী পাড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।
১৭। রবিউল আলম,পিতা-মৃত ফরিদুল আলম, সাং-পষ্চিম,লরাবাগ, জালালাবাদ, বর্তমানে পূর্ব পোকখালী মুসলিম বাজার, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ  মোঃ খায়রুজ্জামান খান তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এলাকার আম জনতা ও পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতের লক্ষ্যে মামলায় অভিযুক্ত ও চিহিৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •