cbn  

ইমাম খাইর, সিবিএন:
কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত আসামী ধরতে গিয়ে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। পুলিশের ব্যবহারের একটি মটর সাইকেল ও কয়েকটি হ্যান্ডকাপ ছিনিয়ে নিয়েছে আসামী ও স্বজনেরা। অবশ্য তা পরে অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করেছে পুলিশ।
শনিবার (১৬ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে খুরুশকুল কাউয়ারপাড়া বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।
ঘটনার পরে কক্সবাজার থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পুরো এলাকায় চিরোনি অভিযান শুরু করেছে। শনিবার রাত সাড়ে ৯টায় রিপোর্ট লিখাকালে অভিযান অব্যাহত আছে। এ সময় সন্দেহভাজন অন্তত ২০ জনকে আটক করেছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুরো এলাকা পুরুষশূণ্য হয়ে গেছে। স্থানীয়দের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, মামুন, নুরুল আলম, কাইছার, শহীদুল্লাহ, পারভেজ, নুরুল আমিন হাদি, তারেক, রাশেদ, শাহেদসহ চিহ্নিত কিছু অপরাধী পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় সরাসরি জড়িত। তাদের ইন্দন যুগিয়েছে এলাকার কিছু প্রভাবশালী লোক।
নাম প্রকাশ না করার অনুরোধে স্থানীয় এক দোকানদার জানিয়েছে, মৃত নুরুল আলম বহদ্দারের ছেলেরা ঘটনাটি ঘটিয়েছে। এদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে থানা ও আদালতে অসংখ্য মামলা রয়েছে। এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্টের জন্য এসব চিহ্নিত অপরাধীরা দায়ী বলে জানান ওই দোকানদার। তিনি ঘটনায় নিরীহ মানুষজনকে না জড়াতে প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করেন।
ঘটনাস্থল থেকে কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই তপন সিবিএনকে মুঠোফোনে জানান, স্থানীয় মৃত নুরুল আলম বহদ্দারের ছেলে মামুন, পারভেজ, কাইছার, মোজাম্মেল হকের ছেলে শহীদুল্লাহ, মৃত ওবাইদুল্লাহর ছেলে নুরুল আলম গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত আসামী। তাদের ধরতে গেলে আক্রমণ করে স্বজনেরা। ছিনিয়ে নিয়ে যায় পুলিশের একটি মটর সাইকেল ও কয়েকটি হ্যান্ডকাপ। পরে তা উদ্ধার করা হয়। এসময় আসামী ও তাদের স্বজনদের হামলায় পুলিশের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছে।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সিবিএনকে জানান, গ্রেফতারী পরোয়ানাভুক্ত আসামী ধরতে গিয়ে স্বজনেরা মিলে পুলিশের উপর অতর্কিত হামলা করা হয়। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠিয়ে জিম্মিদশা থেকে পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বেশ কিছু লোককে আটক করা হয়েছে। যাচাই বাছাই করে নিরপরাধ লোকজনকে ছেড়ে দেওয়া হবে। জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ঘটনার বিষয়ে পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন জানান, আসামী ধরতে গিয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উপর হামলার ঘটনা খুবই নিন্দনীয় ও ন্যাক্কারজনক। ঘটনায় জড়িতদের ধরতে অভিযান চলছে। কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •