cbn  

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার শহরের তিনটি দীঘি সংস্কার করে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ শুরু করবে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক)। দীঘিগুলো হচ্ছে-শহরের লালদীঘি, গোলদীঘি এবং বাজারঘাটার নাপিতাপুকুর।সংরক্ষণ, সংস্কার এবং স্থানীয় জনসাধারণের বিনোদনের কথা মাথায় রেখে নান্দনিক স্থাপত্য শৈলীতে সংস্কারের এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানান কউক চেয়ারম্যান লেঃ কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ। তিনি জানান-বর্তমানে নষ্ট, নোংরা জলাশয়ে পরিনত হয়ে ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়া এই তিনটি দীঘিকে পরিকল্পিতভাবে ব্যাপক সংস্কারের মাধ্যমে দীঘি গুলোর পাড় উঁচুকরণ, দীঘির পুনঃখনন, ওয়াকওয়ে নির্মাণ, রিটের্নিং ওয়াল নির্মাণ, আলোক সজ্জা,
দীঘির চারপাশে বিদ্যুতায়ন, দীঘির পানিতে ফাউন্টেইন রেইন স্থাপন, দর্শনার্থীদের বসার জন্য গ্যালারি নির্মাণ, পয়:নিষ্কাশন ও পানি সরবরাহের ব্যবস্থা, দীঘির পানির উচ্চতা সবসময় পরিমিত পর্যায়ে ও ব্যবহারযোগ্য করে রাখা এবং ক্যাফেটোরিয়া সহ অত্যাধুনিক ধাঁচে প্রয়োজনীয় সবকিছু নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।
তৈরীকৃত ডিজাইন, প্ল্যান অনুযায়ী উক্ত দীঘি তিনটি সংস্কারের জন্য নেয়া প্রকল্প তিনটি শতভাগ বাস্তবায়িত হলে কক্সবাজার শহরের সৌন্দর্য বৃদ্ধির পাশাপশি বিনোদনের নতুন ক্ষেত্র উন্মোচিত হবে বলে মন্তব্য করেছেন কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান। কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইসতিয়াক আহমেদ জয় বলেছেন-এ প্রকল্প তিনটির কাজ সম্পন্ন হলে অনেকটা বদলে যাবে অপরিচ্ছন্ন কক্সবাজার শহরের চিরায়িত রূপ। হয়ে উঠবে উপভোগ্য এক অসাধারণ মজার শহর। অস্বাস্থ্যকর, ময়লা আবর্জনার ভাগাঢ় থেকে বাসযোগ্য রঙ্গীন, ও অপরূপ এক শহরে পরিণত হবে পর্যটন শহর কক্সবাজার।
বৃহস্পতিবার ১৪ মার্চ দু’প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান ও কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে: কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ প্রকল্প গুলোর নির্ধারিত স্থান সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে তাঁরা জানান-শিঘ্রী প্রকল্প তিনটির কাজ শুরু করা হবে। এসময় কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সদস্য (প্রকৌশল) এবং প্রকল্প পরিচালক লে: কর্নেল মোহাম্মদ আনোয়ার উল ইসলাম, প্রত্যাশী সংস্থার উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ সহ কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইসতিয়াক আহমেদ জয়, কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র হেলাল উদ্দিন কবির, কাউন্সিলর রাজ বিহারী দাশ, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, স্থানীয় জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •