শাহেদ মিজান, সিবিএন:

টেকনাফে দুর্বৃত্তের গুলিতে আবারো মোহাম্মদ হোসেন (২৪) নামে এক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মোহাম্মদ ইলিয়াছ (২৩) নামে আরও একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মঙ্গলবার (১২মার্চ) রাত সাড়ে ৯টার দিকে টেকনাফের নিবন্ধিত নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরে এ ঘটনা ঘটে। এই ইয়াবা লেনদেন নিয়ে এই ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়েছে।
নিহত মোহাম্মদ হোসেন নয়াপাড়া নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরের আজিম উল্লাহ ছেলে ও এইচ ব্লকের ৬৪৪ সেডের ৬ নম্বর রুমের বাসিন্দা। তার এমআরসি নম্বর ৬১০০১। আহত মোহাম্মদ ইলিয়াছ একই ব্লকের মৃত শামসুল আলমের ছেলে। তার সেড নম্বর ৬৪৬, রুম নম্বর ২২ ও এমআরসি নম্বর ১২৩৬৫।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে রোহিঙ্গা ডাকাত মোহাম্মদ সাদেক, মোহাম্মদ জকির ও মোহাম্মদ সেলিমের নেতৃত্বে অস্ত্রধারী একটি দল মোহাম্মদ হোসেনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। এ সময় তার সঙ্গী ইলিয়াছকেও ধরে ফেলে। পরে তাদের পাহাড়ের দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তারা পালানোর চেষ্টা করলে তাদের লক্ষ্যে করে গুলি ছুঁড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে দুজনই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।
খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছলে অস্ত্রধারীরা পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। পরে গুলিবিদ্ধদের উদ্ধার করে শিবিরের হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মোহাম্মদ হোসেনকে (২৪) মৃত ঘোষণা করে এবং আহত ইলিয়াছকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজারে পাঠানো হয়েছে।
তথ্য নিশ্চিত করেছেন টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ কবির হোসেন জানান, রোহিঙ্গা ডাকাতদের গুলিতে এক রোহিঙ্গা নিহত ও অপরজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, তাদের মধ্যে ইয়াবা লেনদেন ছিলো। বনিবনা না হওয়ায় এই ঘটনা ঘটায়।  অস্ত্রধারীদের ধরতে পুলিশের অভিযান চলছে।
উল্লেখ্য, গত পক্ষকাল আগেও দুর্বৃত্তের গুলিতে রোহিঙ্গা পল্লী চিকিৎসক মারা যান। দিন যত যাচ্ছে, রোহিঙ্গাদের অপরাধ তত বাড়ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •