cbn  

 

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি টেকনাফ হাইস্কুল মাঠে আত্মসমর্পণকৃত ১০২ জন ইয়াবাবাজের আত্মসমর্পণের শর্ত অনুযায়ী তাদের অর্জিত সম্পদের বিষয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তাদের জীবনবৃত্তান্ত প্রেরন করা হয়েছে। যেসব বিভাগে জীবনবৃত্তান্ত সহ প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত প্রেরণ করা হয়েছে, সেগুলো হলো-বাংলাদেশ পুলিশের সিআইডি’র অর্গানাইজ ক্রাইম (ইকোনোমিক ক্রাইম স্কোয়াড) বিভাগ, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট সহ রাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট আরো ক’টি বিভাগ। আত্মসমর্পণের আরেকটি শর্ত মতে, আত্মসমর্পণকারী ইয়াবাবাজদের সরকারপক্ষে আইনগত সহায়তা প্রদান কিভাবে করা হবে-সে বিষয়েও জানানোর জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম সিবিএন-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান-জেলা পুলিশের প্রেরিত ইয়াবাবাজদের জীবনবৃত্তান্ত ও তথ্য উপাত্ত যাছাই-বাছাই করে সম্পদ বিবরনী, আয়ের সাথে অসংগতিপূর্ণ সম্পদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সংশ্লিষ্ট বিভাগ গুলো ইতিমধ্যে মাঠপর্যায়ে ও নথিপত্র নিয়ে যাচাই বাচাই শুরু করেছে। আত্মসমর্পণের শর্ত অনুযায়ী আত্মসমর্পণকারী জেলে থাকা ইয়াবাবাজদের সরকারিভাবে আইনগত সহায়তা প্রদানের কথা ছিল। সে অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের লিগ্যাল উইং থেকে আইন মন্ত্রনালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখাতে এবিষয়ে সিদ্ধান্ত চাওয়া হয়েছে। তবে ইয়াবাবাজদের বিরুদ্ধে আত্মসমর্পণের আগে যে মামলাগুলো আদালতে বিচারধীন ছিল সেগুলো আইনের নিজস্ব ধারায় স্বাভাবিক গতিতে চলবে বলে এসপি এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম জানিয়েছেন। আত্মসমর্পণকৃত ইয়াবাবাজেরা শুধুমাত্র টেকনাফ মডেল থানার মামলা নম্বর ১১৬/২০১৯ ও ১১৭/২০১৯, যার জিআর নম্বর ৯৮/২০১৯ (টেকনাফ) ও ৯৯/২০১৯ (টেকনাফ) মামলা দু’টি তে সরকারপক্ষে আইনগত সহায়তা পাবে। এদু’টি বিষয়ে খুব শীঘ্রই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত জেলা পুলিশকে জানাতে পারেন বলে এসপি এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম জানিয়েছেন। তিনি জানান-উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত সাপেক্ষে ইয়াবাবাজদের অর্জিত আয়ের সাথে অসংগতিপূর্ণ সম্পদ সমুহ রাষ্ট্রের অনুকূলে ক্রোক করার অনুমতি পাওয়ার জন্য কক্সবাজারের স্পেশাল জজ আদালতে ১৯১২ সালের মানি লন্ডারিং আইনে পারমিশন মিচ মামলা করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •