আবুল কালাম, চট্টগ্রাম:
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (চমেক) এ সিটি স্ক্যান মেশিন টি  চার বছর বন্ধ থাকার পর, রোগীদের বিড়ম্বনা দূর করতে  আবারও  চালু হচ্ছে সিটি স্ক্যান সেবা। চমেকে  ইতোমধ্যে নতুন মেশিনে পরীক্ষামূলক সেবা চালু করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সেবা উদ্বোধন করা হবে।
গত বছর নভেম্বরে হাসপাতালে নতুন সিটি স্ক্যান মেশিন আনা হলেও সেটি স্থাপনে প্রায় চার মাস সময় লাগে।
হাসপাতালের রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে পরীক্ষামূলক কিছু রোগীর সিটি স্ক্যান করানো হচ্ছে।
রেডিওলজি অ্যান্ড ইমেজিং বিভাগের প্রধান ডা. সুভাষ মজুমদার  বলেন, সেবা চালু হওয়াতে অনেক অসহায়-গরীব রোগী সুফল পাবে।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গড়ে প্রতিদিন ২০ থেকে ৩০ জন রোগীর সিটি স্ক্যান সেবা লাগে। দুই থেকে চার হাজার টাকায় হাসপাতালে এ সেবা পাওয়া গেলেও বেসরকারি রোগ নিরূপণ কেন্দ্রে তিন থেকে আট হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ হয়। ফলে অসচ্ছল রোগীরা এ ব্যয় বহনে বিপাকে পড়েন।
সংশ্লিষ্ট বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালে একটি মেশিন দিয়ে সিটি স্ক্যান সেবা চালু হয়। ২০১৪ সালের আগস্টে মেশিন নষ্ট হয়ে গেলে সেবা বন্ধ হয়ে যায়।
এরপর গত বছর প্রায় সাত কোটি টাকা দামের জাপানি হিটাচি ব্র্যান্ডের নতুন মেশিনটি স্বাস্থ্য অধিদফতর চমেক হাসপাতালে বরাদ্দ দেয়।
হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আখতারুল ইসলাম  বলেন, নতুন মেশিন চালু হয়েছে। পাশাপাশি হাসপাতালে এখনো যেসব সেবা বন্ধ রয়েছে, সেগুলো চালুর জোর প্রক্রিয়া চলছে।’
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •