চকরিয়া প্রতিনিধি:

দ্বিতীয় ধাপে আগামী ১৮ মার্চ অনুষ্টিতব্য চকরিয়া উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়া ১৩জনের মধ্যে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্গনের অভিযোগে মঙ্গলবার ১২ প্রার্থীকে শোকজ করা হয়েছে। কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং কর্মকর্তা মো.বশির আহমেদ শোকজ নোটিশ জারি করেন।

নোটিশে বলা হয়েছে, চকরিয়া উপজেলার ১২জন প্রার্থী উপজেলা পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর বিধি, ৮এর উপবিধি(৮) এর সুস্পষ্ট লঙ্গন করেছেন। প্রতিক পাওয়ার পর এসব প্রার্থীরা দেয়ালে, শিক্ষা প্রতিষ্টানে, ব্যবসায়িক প্রতিষ্টানে, বৈদ্যুতিক খুটিসহ বিভিন্ন স্থাপনায় আঠা ধারা পোস্টার সাটিঁয়েছেন। এছাড়া তফসিল ঘোষনার পর টাঙ্গানো বিলবোর্ড, পোস্টার-ব্যানার অপসারণ করেননি। তাই নোটিশ প্রাপ্তির ১২ ঘন্টার মধ্যে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীকে লিখিত বক্তব্য প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন।

নোটিশ দেয়া হয়েছে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনিত গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা ফজলুল করিম সাঈদী, অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী জহিরুল ইসলাম। একইসঙ্গে নোটিশ দেয়া হয়েছে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী-সাফিয়া বেগম শম্পা, জাহানারা পারভীন, জেসমিন হক জেসি। সাধারণ ভাইস-চেয়ারম্যান প্রার্থী মকছুদুল হক চুট্টু,ছৈয়দ আলম, সিরাজুল ইসলাম আজাদ, আবু মুছা ও বেলাল উদ্দিন শান্তকে।

নির্বাচনে ১৩জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকলেও চেয়ারম্যান প্রার্থী মোক্তার আহমদ চৌধুরী এখনো পর্যন্ত উপজেলায় কোন প্রকার প্রচার প্রচারণা চালাননি। সাটাননি পোস্টার ও ব্যানার। তাই একমাত্র তাকেই শোকজ করা হয়নি।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো.সাখাওয়াত হোসেন বলেন, নোটিশ প্রাপ্তির ১২ ঘন্টার মধ্যে শোকজের লিখিত জবাব দিতে হবে। নচেৎ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া ম্যাজিস্ট্রেটকে সাথে নিয়ে বুধবার (আজ) বিকেল থেকে অভিযান চালানো হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •