বিশেষ প্রতিবেদকঃ
কক্সবাজার শহরের টেকপাড়ায় ছেলের খৎনা অনুষ্ঠানের ঢুকে সশস্ত্র দুর্বৃত্তদের হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। এতে বাড়ির মালিকসহ অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজারের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
৪ মার্চ বেলা দুইটার দিকে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের টেকপাড়া মাঝেরঘাটের জনতা সড়ক এলাকার একটি বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। ঘটনায় জড়িত কেউ আটক হয়নি। তবে, চিহ্নিত দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগী বাড়ির মালিক আবু খালিদ।
তিনি স্থানীয় সমাজসেবক ও সম্প্রতি সমাপ্ত হওয়া কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচনে ৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ছিলেন।
আবু খালিদ অভিযোগ করেন, ৪ মার্চ তার ছেলের খৎনা অনুষ্ঠান চলছিল। একারণে বাড়িতে অনেক মেহমান উপস্থিত হয়। ঠিক আয়োজন চলাকালে বেলা ২টার দিকে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত বাড়ির দিকে গুলি ফায়ার করে ঢুকে পড়ে। ওই দুর্বৃত্তদের দলে স্থানীয় ১০-১৫ জন লোক দেখা গেছে। সশস্ত্র দুর্বৃত্তরা বসতভিটায় ঢুকে এলোপাতাড়ি মারধর ও ভাঙচুর চালায়। এসময় তারা তিনটি বাড়ির গ্লাস ভাঙচুর করে। তাদের বেপরোয়া মারধর ও হামলার ভয়ে এলাকাবাসী পালিয়ে যায়। ঘটনায় আবু খালিদ ও অপর ভাই আবু কাইসারসহ অন্ততঃ পাঁচজন আহত হয়। পরে পথচারীরা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
ভিকটিম আবু কাইসার ও স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, আবু খালিদের ছেলের খৎনা অনুষ্ঠান চলাকালে কিছু অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী তার বাসার গেট ভেঙে হুড়মুড়িয়ে ঢুকে পড়ে। কেও কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমন্ত্রিত মেহমানদেরকে প্রথমে মারধর শুরু করে। এতে আবু খালিদ বাধা দিতে গেলে তাঁর ওপর চড়াও হয়। এরপর সন্ত্রাসীরা বাসার দরজা, জানালার থাইগ্লাস, এবং পাশে রাখা মেহমানদের গাড়ি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়। এছাড়া পাশের ৩/৪ টি বাড়িতে এলোপাথাড়ি হামলা চালায়। তবে, কেন এমন ঘটনা ঘটানো হলো? তা কেউ জানাতে পারেনি। বিগত পৌরসভা নির্বাচনের রেশ ধরে ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে অনেকেই ধারণা করেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ পাঠানো হয়েছে। উভয় পক্ষ অভিযোগ দিয়েছে। যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •