মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেলেন। গত ২৭ মার্চ কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী আজিজুল হক সাগরের মনোনয়নপত্রটি বাছাইকালে রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সাঃ) মোহাম্মদ মাসূ্ুদুর রহমান মোল্লা বাতিল করে দেন। এই বাতিল আদেশের বিরুদ্ধে আজিজুল হক সাগর জেলা প্রশাসকের কাছে আপীল করেন। মঙ্গলবার ৫ মার্চ সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আপীল বিচারক জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন আপীল আবেদনটি শুনানী করে রিটার্নিং অফিসারের বাতিল আদেশ বহাল রেখেছেন। তবে জেলা প্রশাসকের এই আদেশের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন ও হাইকোর্টে আজিজুল হক সাগর আপীল করতে পরাবেন। প্রসংগত গত ২৮ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিনে কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী মাত্র ২ জনের মধ্যে আজিজুল হক সাগরের মনোনয়নপত্রটি অবৈধ ঘোষিত হওয়ায় এবং এডভোকেট ফরিদুল ইসলামের চৌধুরীর মনোনয়নপত্রটি বৈধ হওয়ায় উক্ত পদে একমাত্র প্রার্থী হিসাবে এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম আগামী ৮ মার্চ চুড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের দিন বিধি মোতাবেক বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় অফিসিয়ালি নির্বাচিত ঘোষিত হবেন। বিষয়টি জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বিশ্বস্ত সুত্র সিবিএনি-কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
নির্বাচন কার্যালয় সুত্রে জানা গেছে-আজিজুল হক সাগর মনোনয়নপত্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে যে আড়াইশ’জন ভোটারের স্বাক্ষর রয়েছে-তার মধ্যে একজন ভোটার মারাগেছে অথবা দীর্ঘদিন থেকে বিদেশে আছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাই ঐ ভোটারটিকে পাওয়া যায়নি। দ্বিতীয়ত বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রদত্ত প্রতিবেদনে আজিজুল হক একজন ঋনখেলাপী। এ দু’টি মৌলিক কারণে কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আজিজুল হক সাগরের দাখিলকৃত মনোনয়নপত্রটি বাছাইকালে বাতিল করা হয়েছে। একই পদে বৈধ হওয়া একমাত্র ব্যক্তি এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিন অর্থাৎ ৭ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার নাকরলে তাঁকে ৮ মার্চ অফিসিয়ালি নির্বাচিত ঘোষনা করা হবে।

এছাড়া আপীল কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন মহেশখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে শরীফ বাদশা ও কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে আকবর খানের বাতিল হওয়া মনোনয়নপত্র একই দিন বৈধ ঘোষনা করেছেন। তাছাড়া পেকুয়া উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান পদে নুর মোহাম্মদ, নাসির উদ্দিন ও আমির আশরাফের মনোনয়ন পত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপীল করলে নিম্মআদালতের আদেশ জেলা প্রশাসক বহাল রেখেছেন। আজিজুল হক সাগরের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষনার বিরুদ্ধে পরবর্তী আপীল আদালতে পদক্ষেপ নেয়া বিষয়ে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ ছৈয়দ আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন-যে দু’টি কারণে আজিজুল হকের মনোনয়নপত্রটি বাতিল করা হয়েছে-সেই কারণ দু’টি মৌলিক কারণ হওায়ায় পরবর্তী আপীল আদালতেও তার মনোনয়নপত্র বৈধ নাহওয়ার সম্ভাবনাই বেশী। সুতরাং এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়া এখন সমেয়ের ব্যাপার মাত্র। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাওয়া আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বর্তমানে কুতুবদিয়ার বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সাবেক কুতুবদিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। আজিজুল হক সাগর কক্সবাজার জেলা পরিষদের একজন সদস্য।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •