বিদেশ ডেস্ক :

ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমান যে মুক্তি পাচ্ছেন, তার আভাস পাওয়া গিয়েছিল জিও নিউজকে দেওয়া পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎকার থেকে। তিনি বলেছিলেন, দুই দেশের উত্তেজনা নিরসনে ভূমিকা রাখলে আটক ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলটকে মুক্তি দিতে প্রস্তুত রয়েছে পাকিস্তান। তার কয়েক ঘণ্টার মাথায়, পার্লামেন্ট ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান নিশ্চিত করেছেন, কাল শুক্রবারই তারা আটক পাইলটকে ফিরিয়ে দেবেন। ভারতের পক্ষ থেকে তার শর্তহীন মুক্তি দাবি করা হয়েছিল।
ভারতীয় বিমান বাহিনীর পাইলট অভিনন্দন বর্তমান
মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভারতীয় বিমান বাহিনী পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকে বিমান থেকে বোমাবর্ষণ করে। পরদিন বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে দুটি ভারতীয় যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করে এক পাইলটকে আটক পাকিস্তান। পাল্টাপাল্টি হামলায় দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘উত্তেজনা নিরসনে ভূমিকা রাখলে আমরা ভারতীয় পাইলটকে হস্তান্তর করতে প্রস্তুত’।

এদিকে পার্লামেন্টের এক যৌথ অধিবেশনে দেওয়া ভাষনে বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানিয়েছেন, শান্তির নিদর্শন অংশ হিসেবে আমরা আটক ভারতীয় পাইলটকে আগামীকাল মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে তিনি বলেন, উত্তেজনা নিরসনে আমাদের এই পদক্ষেপকে দুর্বলতা হিসেবে দেখা ঠিক হবে না। পরিস্থিতিকে আরও উত্তপ্ত না করতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। ইমরান বলেন, এটাকে আর টেনে নেবেন না, পাকিস্তান প্রতিশোধ নিতে বাধ্য হবে।
গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মিরের পুলওয়ামায় ভারতের ‘সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের’ গাড়িবহরে আত্মঘাতী বোমা হামলায় বাহিনীটির অন্তত ৪০ জন সদস্য প্রাণ হারান। পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদ হামলার দায় স্বীকার করে। মঙ্গলবার সেই জইশ-ই মোহাম্মদের ঘাঁটি ধ্বংসের কথা বলেই ৭১-পরবর্তী ইতিহাসে প্রথমবারের মতো পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের আকাশসীমায় ঢুকে বিমান হামলা চালায় ভারত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •