এফ এম সুমন,পেকুয়া (কক্সবাজার) :

বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রণালয় আইপি টিভি (Internet protocol television) সম্প্রচার নীতিমালা প্রণয়নের জন্য একটি সরকারী কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির সদস্য সংখ্যা দশজন। এতে ঢাকার বাইরে একমাত্র কনিষ্ট সদস্য মনোনীত হয়েছেন চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষার জনপ্রিয় অনলাইন টিভি সিপ্লাস টিভির সম্পাদক আলমগীর অপু।

তথ্য মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রচার)কে আহবায়ক করে গঠিত কমিটির সদস্য হিসাবে রয়েছেন বিটিভির মহাপরিচালক, বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালক, আইসিটি বিভাগের প্রতিনিধি, তথ্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, বেক্সিমকো কমিউনিকেশনএর প্রতিনিধি, সময় টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ জোবায়ের, ডিবিসি নিউজের সিইও মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম, সিপ্লাস টিভির সম্পাদক আলমগীর অপু। এছাড়া কমিটির সদস্য সচিব হিসাবে থাকবেন তথ্য মন্ত্রনালয়ের উপসচিব (টিভি-২)।

এই কমিটি আইপি টিভি নীতিমালার একটি খসড়া চুড়ান্ত করে পেশ করবে। এই নীতিমালার ভিত্তিতে দেশের অভ্যন্তরে সমস্ত অনলাইন সম্প্রচার মাধ্যমগুলো নিয়ন্ত্রিত হবে।

কমিটিতে তিনজন সাংবাদিকের মধ্যে ঢাকার বাইরে একমাত্র সদস্য আলমগীর অপু এবং তিনি সবার কনিষ্টও বটে। এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি ফেসবুক স্টাটাসে বলেন, অনেকেই একটি প্রশ্ন করেন আপনার cplustv কি অনুমোদন পেয়েছে? মন ছোট করে তখন বলতাম, সরকার কাউকে এখনো অনুমোদন দেয়নি, হয়তো সামনে দিলে হবে। আমরাতো বাংলাদেশে আইপি টিভি কনসেপ্টে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আছি, তবুও মনে খটকা লেগে থাকতো-আমিতো এখন কড়া রাজনীতি করি না। কোন একক নেতার ছায়া নিয়ে গর্ব করে বলি না আমার cplustv এই নেতার! আমি cplustvকে করতে চেয়েছি জনতার। কয়েকদিন আগে তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে এক ডিএস ফোন দিয়ে জানালো আপনাকে আইপি টিভি নীতিমালা কমিটিতে মন্ত্রী মহোদয় রাখতে চান, আপনি কি প্রস্তুত? আমিতো অবাক! এই চাটগাঁ টিভির কনসেপ্টটা সরকারী স্বীকৃতি পেলো তাহলে? বিশ্বাস করুন, আমি তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ ভাইকে কোন অনুরোধ, আবদার কিংবা এই বিষয়ে কোন কিছুই বলিনি।উনি আপনার প্রিয় cplustv কে মনে রেখেছেন,দেখেন এবং নিশ্চিত মর্যাদা দিয়েছেন। জানি না কোন অবদান রাখতে পারবো কিনা। চেষ্টা করবো তথ্যমন্ত্রী হাসান ভাইয়ের সম্মান রক্ষা করতে। কারণ ঢাকার দুজন সিনিয়র সাংবাদিক আর ঢাকার বাইরে আমি চাটগাঁর একমাত্র অধম। এটা আমাদের সকল দর্শক, পাঠকদের সম্মান।আজ সকালে আনুষ্ঠানিক ইমেইল দিয়ে জানালেন তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে। কৃতজ্ঞতা জানাতেই হবে জননেতা ড.হাসান মাহমুদ ভাইকে।দোয়া করবেন। চট্টগ্রামের প্রতি উনার ভালোবাসা আসলেই নেতাসূলভ।

আলমগীর অপু একসময় আরটিভি র চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান, এটিএন নিউজ ঢাকায় সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। পরে নিউইয়র্কে টাইম টেলিভিশন নামে একটি আইপিটিভিতে কাজ করেছিলেন। নিউইয়র্কের বিলাসী জীবন ছেড়ে চাটর্গা ভাষায় সিপ্লাসটিভি করার মানসে স্বপরিবারে বাংলাদেশে চলে আসেন আলমগীর অপু।ইতিমধ্যে সিপ্লাসটিভি ব্যাপক দর্শক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আঞ্চলিক ভাষায়ও যে টিভি করা যায় তা আলমগীর অপু প্রমান করেছেন। কারণ বাংলাদেশে আঞ্চলিক ভাষায় এটিই প্রথম টিভি। এই কমিটি শিগগির বাকি কাজ শুরু করবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •