শাহেদ মিজান, সিবিএন:
কয়েকদিন আগে রামুর একটি ঘটনা দেশজুড়ে তোলপাড় তুলেছিল। ঘটনাটি ছিলো ব্রীজ না থাকায় ভেলায় চড়িয়ে লাশের খাটিয়া পারাপার। এই ঘটনার ছবি বিশ^জুড়ে ভাইরাল হয়েছিল। কয়েকদিনের ব্যবধানের এমন আরো একটি ছবি প্রকাশ পেয়েছে ফেসবুকে। ছবির দৃশ্যটি দেখা গেছে মহেশখালীতে। উপজেলার ছোটমহেশখালীর বিচ্ছিন্ন তেলিয়াপাড়া গ্রামের ঘটনা এটি।

খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে, ছোটমহেশখালী ইউনিয়নের নদী বিচ্ছিন্ন গ্রাম তেলিয়াপাড়া। এই পাড়ার লোকজনের পেশা মাছধরা। একটা ব্রীজের অভাবে এই গ্রামের বাসিন্দারা সারাজীবন খাল ডিঙিয়ে জীবন পার করে যাচ্ছেন। ভাটার সময় হাঁটু পানি হলেও হলেও জোয়ারের সময় অনেক সময় কোমর পর্যন্ত পানি ডিঙিয়ে পারাপার করেন লোকজন।

স্থানীয় সংবাদকর্মী বশির উল্লাহ জানান, ৩/৪ মাস আগে ওই এলাকার এক বৃদ্ধ মারা গেছেন। কিন্তু কবরস্থান হচ্ছে খালের ওইপারে। জানাযার সময় হয়ে গেলেও জোয়ার কমেনি। নেই কোনো বিকল্প সড়কও। শেষে বাধ্য হয়ে কোমর পানিতে দিয়ে লাশের খাটিয়া পার করেছেন শবযাত্রীরা।  এই দৃশ্যের ছবি তুলেছিলেন কেউ। তবে তা ফেসবুকে আপলোড করেছেন ২৬ ফেব্রুয়ারি। এই ছবি ছড়িয়ে পড়লে চারিদিকে তোলপাড়া শুরু হয়।

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ঝোপ-জঙ্গলে ঘেরা খালে কোমর সমান পানি। এই পানি ডিঙিয়ে ১০/১২জন মানুষ লাশটি পার করছে। মুহূর্তের মধ্যে ছবিটি ভাইরাল হয়ে যায় বিভিন্নজনের ফেসবুক টাইমলাইনে। এতে শুরু হয় নানা আলোচনা-সমালোচনা। অনেকে এই আধুনিক এবং উন্নয়নের সময়েও একটি ব্রীজের একটি গ্রামের মানুষের বারো মাস পানিবন্দি হয়ে জীবন কাটানোর জন্য আফসোস ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। একই সাথে রাষ্ট্রযন্ত্রের সমালোচনাও করা হচ্ছে।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •