সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁওঃ

যত্রতত্র ছড়ার বালি, পাহাড়ি মাটি পরিবহনের কারনে সামান্য বৃষ্টিতেই কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী বাজারের সড়ক-উপসড়ক গুলো কাদামাটিতে একাকার অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ। এ যেন দেখার কেউ নেই। চারদিকে অবৈধ ট্রাক্টর, টলি, ডাম্পার, ট্রাক দিয়ে নিয়মিত মাটি, বালি তোলায় চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে জনগণের মাঝে। প্রশাসনের নিরবতা জনমনে নানারকম প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
সোমবার সকালের সামান্য বৃষ্টিতেই বাজারের হাফেজখানা সড়কের বেহাল দশা লক্ষ করা গেছে। বেশ ক’জনের অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গিয়ে এর সত্যতা মিলেছে।
মনে হচ্ছে এসব পরিবহন মালিকদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছে এলাকার সাধারন মানুষ। প্রশাসনের সহযোগিতায় এলাকার একশ্রেণির মানুষ গড়ে তুলেছে বালি মাটি পাচার সিন্ডিকেট। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন ও ক্ষমতাসীন দলের ব্যক্তিদের ম্যানেজ করে জনগণকে তোয়াক্কা না করে অবৈধ ভাবে এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। অবৈধ ও ফিটনেস বিহীন ডাম্পার- ট্রাকে রাস্তা দিয়ে মাটি বহন হচ্ছে। টিপ চুক্তিতে গাড়ির চালকরা মাটি বহন করতে গিয়ে দ্রুতগতিতে চলাচল করে।
এসব অবৈধ গাড়ি চালানোর জন্য মাসিক হারে গাড়ি মালিকদের বিভিন্ন স্থানে টাকা দিতে হয় বলে জানা গেছে। ফলে সোমবার সকালে একটু সামান্য বৃষ্টি হওয়ায় ইউনিয়নের হরিখোলা সড়ক, সেগুন বাগিচা সড়ক ও হাফেজখানা সড়কের পাকা রাস্তা গুলো ব্যাপক কাদা মাটির সৃষ্টি হয়েছে। যার ফলে রাস্তার চলাচলকারী যাত্রীরা পড়েছে চরম ভোগান্তিতে। বিশেষ করে মোটরসাইকেল, ভ্যান চালকদের বিপদের কোন শেষ নেই। এদিন বেশকয়েকটি পথচারী মোটরসাইকেল দূর্ঘটনার শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে।
এছাড়া ভ্যান, সিএনজি,টমটম, অটোরিক্সা চলাচলে ব্যাপক বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। স্কুল-মাদরাসা- কলেজগামী শিক্ষার্থী ও হেঁটে চলা যাত্রীদের ভোগান্তি আরো চরম আকার ধারন করেছে।
বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, অবৈধ ডাম্পারগুলো তাদের এলাকার পাকাসড়ক নষ্ট করছে। তারপরও প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করে না। কোন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই যত্রতত্র মাটি- বালি ভরাট করা হচ্ছে। এ যেন দেখার কেউ নেই।
জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জনপ্রতিনিধি বলেন, স্থানীয় পাহাড়ি মাটি – বালি ব্যাবসয়ীরা এসব রাস্তা ব্যবহার করে মাটি পরিবহন করায় সড়কের বেহাল দশা হয়েছে। এসব গাড়ির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •