আমান উল্লাহ কবির, টেকনাফ :

মাদক ও মানবপাচার রোধে সংবাদকর্মীদের সহযোগিতা কামনা করেছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আছাদুদ জামান চৌধুরী।

২৩ ফেব্রুয়ারি শনিবার টেকনাফের বাংলাদেশ-মায়ানমার ট্রানজিট জেটিতে সংবাদকর্মীদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় এ সহায়তা চান তিনি।

এসময় তিনি বলেন, অক্লান্ত পরিশ্রম করে ইয়াবাসহ যেকোন মাদক ও মানব পাচার রোধে সক্রিয় আছি। তারপরও অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে মাদক ও মানব পাচার করার চেষ্টা করে। রাতের অন্ধকারে অক্লান্ত পরিচশ্রম করে সন্ধ্যা ৬ টা থেকে ভোর ৬ টা পর্যন্ত সীমান্ত রক্ষায় বিজিবি জওয়ানর টহলে থাকে। তারপরও আমরা সংবাদকর্মীদের বস্তুনিষ্ঠ তথ্য দ্বারা বেশী বেশী সহযোগিতা চাই। যাতে মাদক ও মানবপাচারমুক্ত সমাজ গঠনে আমরা অগ্রনী ভুমিকা রাখতে পারি।

সীমান্তে পর্যাপ্ত জনবল আছে উল্লেখ্য তিনি আরো বলেন, শুধু দরকার সঠিক তথ্য। অনেক পাচারকারী জেলে বেশে রাতের অন্ধকারে পাচারে লিপ্ত থাকে। ফলে সহজে তাদেরকে সনাক্ত করা অনেক সময় কঠিন হয়ে পড়ে। এর আগে বিকাল ৫ টায় সংবাদকর্মীদের নিয়ে স্পীডবোট যোগে নাফ নদীর দূর্গম সীমান্ত পয়েন্ট ঘুরে দেখান।

এসময় টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের উপ অধিনায়ক শরিফুল ইসলাম জমাদ্দারসহ বিজিবির বিভিন্ন বিওপি কমান্ডার ও টেকনাফ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি জাবেদ ইকবাল চৌধুরী, সিনিয়র সাংবাদিক মোঃ আশেক উল্লাহ ফারুকী, সাধারন সম্পাদক নুরুল করিম রাসেল, হুমায়ুন রশিদ, জসিম উদ্দিন টিপু, সাংবাদিক ফোরামের সাবেক সভাপতি আমান উল্লাহ কবির, ক্রাইম রিপোটার্স সোসাইটির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন ভুলু, সাধারন সম্পাদক জিয়াবুল হক, টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য সচিব জিয়াউল হক জিয়া, মিজান, রিয়াজুল হাসান খোকন, জুবাইর, ক্রামইম রিপোটার্স সোসাইটির মোঃ শহিদ উল্লাহ, সামসুদ্দিন, ইউসুফ মনো প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •