মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া:
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক অত্যান্ত ব্যস্ততম যোগাযোগ মাধ্যম। মহাসড়ক কিনারায় যত্রতত্রে গাড়ি পার্কিং শিক্ষার্থী ও পথচারীদের অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। বাজার ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংলগ্ন মহাসড়কের পাশে মালবাহী গাড়ি মালামাল উঠানামা করায় বাড়ছে যানজট। শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ যাতায়াতে পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ।
চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী, ডুলাহাজারা, ফাঁসিয়াখালী, কলেজ গেইট, হারবাং, বরইতলী, বানিয়ার ছড়াসহ বিভিন্ন এলাকাতে দুর্ঘটনায় হতাহতের উদাহরণও রয়েছে অহরহ। মহাসড়ক নিকটবর্তী অবস্থান চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন ও তমিজিয়া ইসলামীয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদরাসা। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুটি পাশাপাশি হওয়ায় প্রতিদিন কয়েক হাজার শিক্ষার্থী মহাসড়ক দিয়ে আসাযাওয়া করছে। বিভিন্ন সময়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে এই বিদ্যালয়ের বেশ ক’জন শিক্ষার্থী হতাহত হয়েছে বলে কিশলয় স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন। খুটাখালীর পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক মোঃ শফিকুল ইসলাম জানায়, দূরদূরান্ত থেকে খুটাখালী উচ্চ বিদ্যালয়, কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন, তমিজিয়া ইসলামীয়া ডিগ্রী মাদরাসা, কিশলয় আদর্শ বালিকা মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক দিয়ে আসাযাওয়া করতে হয়। ঝুঁকিমুক্ত চলাচলা ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে জরুরী পয়েন্টে একটি ফুট ওভার ব্রিজের দাবী জানান তিনি।
এ ব্যাপারে মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) আলমগীর হোসেন জানায়, কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতনসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে মহাসড়ক পারাপার সম্পর্কে সচেতনমূলক ক্লাস নেওয়া হয়েছে। এসময় ধারণা দেওয়া হয়েছে যানবাহন ও সড়ক বিষয়ক আইন সম্পর্কেও! শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাশে কোন যানবাহন দাঁড় করিয়ে শিক্ষার্থীদের আসা-যাওয়ার ব্যাঘাত সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুর উদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, সড়ক নিরাপত্তা কমিটির সভায় শিক্ষার্থীদের জীবন ঝুঁকির বিষয়টি আমি উপস্থাপন করেছি। এ স্থানে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য ফুট ওভার স্থাপনে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •