বালুখালী ক্যাম্পে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপ সক্রিয়, ছুরিকাঘাতে আহত-১

শফিক আজাদ,উখিয়া(কক্সবাজার) :

উখিয়ার বালুখালী ২নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসী গ্রুপ সক্রিয় হয়েছে। ক্যাম্পের বিভিন্ন ব্লক থেকে যুবকদের নিয়ে গঠিত এই গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছে মোঃ আইয়ুব নামের এক রোহিঙ্গা। তার সহযোগী হিসেবে রয়েছে আরো অন্তত ১২জন সদস্য। এসব সদস্যের মাধ্যমে বালুখালী ২নং ক্যাম্পে সংঘঠিত হচ্ছে নানান হত্যাকান্ড থেকে শুরু করে নানান অপকর্ম। এর প্রতিবাদ করতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে কেফায়াত উল্লাহ(৩২) নামের এক রোহিঙ্গা ও মসজিদের ইমাম গুরুতর আহত হয়েছে। সে বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়াও সম্প্রতি একই ক্যাম্পে অপহরণপূর্বক হত্যা করা হয়েছে মোঃ রফিক নামের আরেক রোহিঙ্গা যুবককে।

বালুখালী ক্যাম্পের বিভিন্ন রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বালুখালী ২নং ক্যাম্পের হেডমাঝি রোহিঙ্গা নেতা আরিফ উল্লাহ হত্যা কান্ডের পর থেকে এই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী গ্রুপটি দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। এই গ্রুপের সদস্যদের চাঁদা দিয়ে চলতে হয় অন্যান্য রোহিঙ্গাদের। এর প্রতিবাদ করতে গেলে নিহত অথবা আহত হতে হয় রোহিঙ্গাদের। যার ফলে চোঁখের সামনে অপরাধমূলক কর্মকান্ড করে গেলেও তাদের বিরুদ্ধে কিছুই বলতে পারছেনা সাধারণ রোহিঙ্গারা।

সন্ত্রাসীর গ্রুপের হাতে হত্যা শিকার মোঃ রফিকের পিতা ডাঃ সুলতান আহমদ জানান, কাছের কথা বলে একই ব্লকের মোঃ ছলিম নামের এক রোহিঙ্গা তার ছেলেকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে পালংখালী সীমান্ত সংলগ্ন চাকমারকূল রোহিঙ্গা ক্যাম্পের অদূরে আরো কয়েকজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মিলে হাত,পা বেঁধে হত্যা করেছে। হত্যার দীর্ঘ ১৪দিন পর তার ছেলের লাশ ওই স্থান থেকে পুলিশের সহযোগিতায় উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় মোঃ ছলিম উখিয়া থানা পুলিশের হাতে আটক হলেও অন্যান্য সন্ত্রাসীরা এখনো ধরাছোয়ার বাইরে রয়ে গেছে বলে সে জানায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক রোহিঙ্গা যুবক বলেন, তাদের গ্রুপের সদস্য হওয়ার জন্য তাকেও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু সে রাজী হয়নি। এই গ্রুপে কতজন সদস্য রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে ওই যুবক জানায়, বালুখালী ২নং ক্যাম্পের আইয়ুবের নেতৃত্বে রয়েছেন মুহাম্মদুল্লাহ, নুর আলম, নাজুম উল্লাহ, আব্দুর রহিম, মুহিবুল্লাহ, আবুল ফয়েজ, হাশিম, খালেদ, মুছা, মোঃ নুর, শওকত উল্লাহ। এদের উদ্দেশ্য হচ্ছে সাধারণ রোহিঙ্গাদের জিম্মি করে চাঁদা আদায়, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বিরোধী অপপ্রচারসহ বিভিন্ন অপকর্ম।

আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন জানান, এ ধরনের সন্ত্রাসী গ্রুপের ব্যাপারে তাদের কাছে সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য প্রমাণ নেই। যদি পাওয়া যায় তাহলে অবশ্যই ওই সব রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ

এড: আমজাদ হোসেন’র মৃত্যুতে কক্সবাজার সিটি কলেজের শোক

ইয়াবাবাজীর দায়ে এক রোহিঙ্গার ৮ বছরের কারাদন্ড

প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে হ্নীলার জালালের প্রতিবাদ

এড. আমজাদ হোসেনের প্রথম নামাজে জানাজা আদালত প্রাঙ্গনে সম্পন্ন

রামুর ঐতিহ্যবাহী মল্লনের বিলের প্রাচীনতম কবরস্থানটি রক্ষায় সরকারী পদক্ষেপ জরুরী

ভারতে জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলানোর পর মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা

মাত্র ১০৩ টাকায় পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগের প্রচার সর্বত্র সাড়া জাগিয়েছে

রামু চৌমুহনীতে উচ্ছেদ অভিযানে ইউএনওকে সর্বস্তরের মানুষের সাধুবাদ

এডঃ আমজাদ হোসেন এর মৃত্যুতে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির শোক প্রকাশ

মোবাইল ব্যবহারে বাধা দেওয়ায় বিষপানে কিশোরীর আত্মহত্যা

রামুর সমাজসেবক শিমুল বড়ুয়া পরলোকে

বেনাপোল সীমান্তে চোরাচালানী সিন্ডিকেট প্রধান জাহিদ আটক, ৬ নারী পুরুষ উদ্ধার

এডভোকেট আমজাদ হোসেনের জানাজা কখন কোথায়?

আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট আমজাদ হোসেনের মৃত্যু

সাবেক ছাত্রদল নেতা এস.ডি. বাবুর মায়ের পরলোক গমনে জেলা ছাত্রদল এর শোক

ভাইরাস জ্বর সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য জেনে নিন

চারমাসেও উদ্ধার হয়নি চকরিয়ার মুক্তিযোদ্ধার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার আরিফ

সুখী দাম্পত্যের জন্য মনে রাখা চাই যেসব বিষয়

রোহিঙ্গা প্রত্যর্পণে আন্তর্জাতিক তদারকি চান মাহাথির

ডিআইজি মিজানের বিরুদ্ধে দুদক দফতরেই মামলা