জালালাবাদে দুইশ একর জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে না : কৃষকের চোখে জল

শাহিদ মোস্তফা শাহিদ, কক্সবাজার সদর :

কক্সবাজার সদরের জালালাবাদে এবার দুইশ একর জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে না। কারণ,রেল লাইন প্রকল্পের রাস্তা নির্মান ও রাবার ড্যাম কর্তৃপক্ষের উদাসীনতা।এ নিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন কৃষক ও জমির মালিকরা।
জানা যায়, ঘুমধুম থেকে দোহাজারী পর্যন্ত চলমান রেল লাইন প্রকল্পে কাজের রাস্তা নির্মান হওয়ার ফলে নাসী বন্ধ না থাকায় চাষাবাদের জন্য পানি ব্যবহার করতে পারছেন না চাষিরা।
জালালাবাদের পুর্ব ফরাজী পাড়ার কৃষক আবদু ছমদ,দুলা মিয়া চাষি নুরুল আলম বলেন ‘এবারে পানি নিষ্কাশন কারণে চাষ করতে না পেরে খুব ক্ষতি হচ্ছে। মনে হচ্ছে বোরো চাষ আর করতে পারব না।
উপজেলা কৃষি কার্যালয় সূত্র জানায়, চলতি বোরো মৌসুমে সদর উপজেলায় বোরোর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৭ হাজার হেক্টর। রেল লাইনের রাস্তা নির্মান হওয়ার কারণে হাজার হেক্টর মত জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে না। এর মধ্যে ঈদগাঁও, ইসলামাবাদ,ইসলামপুর ইউনিয়নের সেচযন্ত্র দিয়ে বোরোর সেচ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে কৃষকরা। একটি পাম্প দিয়ে অন্তত ১৫০ কানি জমিতে চাষাবাদ হয়। কিন্তু চাষ বন্ধ থাকায় সেচযন্ত্রের মালিকেরাও বিপাকে পড়েছেন বলে জানা গেছে। সরেজমিনে জালালাবাদ ধমকা বিল পরিদর্শন করে দেখা যায়, এখনো অনাবাদী থেকে গেছে প্রায় ২শ একর মত জমি।
ঈদগাঁও রাবার ড্যাম পানি ব্যবস্থাপনা কমিটি সূত্রে সূত্র জানায়, চলতি বোরো মৌসুমে জালালাবাদ ইউনিয়নসহ বেশ কিছু এলাকায় পানি বন্টন করে থাকে।কিন্তু এবারে নাসী খনন করতে না পারায় বন্টন করা সম্ভব হয়নি। যদিওবা একটি আবেদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে প্রেরণ করেন। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কৃষি অফিসারসহ সংশ্লিষ্টরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
কৃষি কর্মকর্তার বলছে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রকল্প হওয়ায় উপজেলা প্রশাসন থেকে কোন নির্দেশও দিতে পারছে না।ফলে এবারে চাষ অনিশ্চিত। তারপরও বিকল্প কোন উপায়ে হলেও চাষাবাদের আওতায় আনা যায় কি না দেখা হবে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জিমান্সু দাশ সিবিএনকে বলেন,এবারে একটু ব্যতিক্রম হওয়ায় আমরা একটু ভাবনায় পড়েছি। হয়তো এ কারণে এবার বৃহত্তর ঈদগাঁওতে অন্তত ৫শ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হবে না। ইতিমধ্যে সরেজমিনে প্রকৌশলী সহ গিয়ে মেপে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। স্থানীয় কৃষকরা আরো জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন কৃষিবান্ধব প্রধানমন্ত্রী। মেগা প্রকল্পের উন্নয়ন কাজের পাশাপাশি কৃষকদের স্বার্থটাও বিবেচনা করার জন্য হস্তক্ষেপ কামনা করেন।জালালাবাদসহ আরো কয়েকটি ইউনিয়নের কৃষকদের সাথে কথা বলে দেখা গেছে তাদের চোখে মুখে হতাশা ও ক্ষোভ। যুগ যুগ ধরে করে আসা বোরা চাষ এবারে করতে না পারায় ব্যাপক খাদ্য সংকটে পড়তে পারেন বলে আশংকা করছে তারা।

সর্বশেষ সংবাদ

কক্সবাজারে দুদকের গণশুনানীতে অভিযোগের পাহাড়

আবুল মনসুর টেকনাফের নতুন এসি ল্যান্ড

ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী খলিল গ্রেপ্তার

ডিসি কামাল ১২ দিনের সফরে আমেরিকায় : ভারপ্রাপ্ত ডিসি আশরাফুল আফসার

তুমব্রু খালে এবার স্লুইচ গেইট নির্মাণ করছে মিয়ানমারঃ বিজিবি ও বিজিপির পতাকা বৈঠক সম্পন্ন

সদর হাসপাতালে সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নেয়া হবে : এমপি কমল

কক্সবাজারের সন্তান কায়িদ ঢাকায় শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত

জলকেলি উৎসবে মুখরিত রাখাইন পল্লীগুলো

উচ্চ শিক্ষা অর্জনে বিদেশ গমনে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীকে আর্থিক সহযোগীতা দেয়া হবে- এমপি কমল

হোপ ফাউন্ডেশনে ‘জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা সপ্তাহ ২০১৯’ উৎযাপন

খরুলিয়ার সেই মা-মেয়েকে মামলা দিয়ে কারাগের প্রেরণ

এড. কবির ছিলেন একজন সফল মানুষ : জেলা জজ হাসান মোঃ ফিরোজ

কক্সবাজার সরকারি কলেজে ইতিহাস বিভাগের ৪র্থ বর্ষে পদার্পণ উৎসব

চতূর্থবারের মতো চট্টগ্রাম রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ টেকনাফের ওসি প্রদীপ

চকরিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে মাদকসেবীকে ৩ মাসের সাজা

বদরমোকাম সমাজের পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠিত

সাংবাদিক হানিফসহ তিনজনকে শ্রেষ্ঠ সন্তান ও ছয় জনকে শ্রেষ্ঠ প্রবীণ সম্মাননা

নবম শ্রেণির প্রশ্নে সানি লিওন-মিয়া খলিফা!

আবুধাবি দূতাবাসে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ উদযাপন

এক পা দিয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে টিউশনি করে পড়াশোনা ও সংসারের ঘানি টানছেন যিনি