বাঁধা দিলে চাঁদাবাজি মামলা দেয়ার হুমকি

কালিরছড়ায় জোরপুর্বক টিলা ও জমি থেকে মাটি কাটা অব্যাহত

বিশেষ প্রতিবেদক :

কক্সবাজার সদর থানাধীন মেহেরঘোনা রেঞ্জের কালিরছড়া বনবিটের অধীনে কানছিরাঘোনা ও পেতাবা কাটা নামক স্থানে পরিবেশ ও বনবিভাগের অনুমতি ছাড়া এমনকি ভুমি মালিকদের ক্ষতিপুরন না দিয়ে মাটি কাটা অব্যাহত রয়েছে। জমির মালিকগন চায়না টিকাদারের অফিসে ধর্না দিয়েও কোন সুরাহা পাচ্ছেনা।

ঘটনার বিবরনে জানাযায়,রশিদ নগর নতুন বাজার এলাকার ৩ কিলোমিটার পুর্বে পেতাবা কাটা নামক স্থানে কয়েক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে জমি ও পাহাড় সমুহ কেটে সাফ করে ফেলা হয়েছে।ব্যাপকভাবে বন কর্তন করা হলেও প্রশাসন রয়েছে নীরব।কারন হিসেবে উন্নয়ন কর্মকান্ড সচল করার কথা বলা হলেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধির প্রত্যক্ষ মদদে জনৈক এন্তাজ কাউকে পরোয়া করছেনা।মাটি কাটার সময় কার ও অনুমতি নেয়ার প্রয়োজন ও মনে করছেনা।ফলে দিনে দিনে সাধারন মানুষ চাষবাস করার জমি হারাচ্ছে।

কালিরছড়া ফরেষ্ট অফিসের বনজায়গীরদার তোফায়েল আহমেদ টুলু জানান,বিগত ১০০ বছর যাবত আমার বাপ দাদার আমল থেকে বন বিভাগের ৩ কানি জমি চাষ করে চলি কিন্তু সন্ত্রাসীরা আমার দেড় কানি জমি অস্ত্রের মুখে কেটে নিয়ে গেছে।মেহেরঘোনা রেঞ্জ অফিসে অভিযোগ করে ও কোন লাভ হয়নি।

ঈদ্গাও ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার জনাব কামাল উদ্দিন জানান,আমার পরিবারের ৫ কানি জমি স্কেবেটার দিয়ে জোরপূর্বক কেটে নিয়ে গেছে।টাকা তো দুরের কথা অনুমতি নেয়ার প্রয়োজন ও মনে করেনি।

চায়না কন্সট্রাকশন কম্পানিতে কর্মরত জনাব সাহাদাত হোসেন জানান,উন্নয়ন কাজে বাধা দেয়া যাবেনা প্রয়োজনে স্থানীয় থানায় কাগজপত্র নিয়ে অভিযোগ দেয়া যেতে পারে।

জেলা বঙ্গমাতা পরিষদের সমাজকল্যান সম্পাদক ও স্থানীয় সমাজকর্মী নুরুল আমিন সোনা মিয়া জানান,যারা জোরপুর্বক মাটি নিয়ে যাচ্ছে তাদের হাতে জমির মালিকানা বা চুক্তিপত্র নেই,সরেজমিনে পরিদর্শনে কোন জমির মালিককে টাকা দেওয়া হয়েছে তেমন কোন প্রমান পাওয়া যায়নি।প্রশাসনের উচিত উন্নয়ন কর্মকান্ড সচল রাখার পাশাপাশি জমির মালিকগনের সবার্থকে সুরক্ষা দেয়া।

এলাকার সচেতন মহলের দাবী,অবিলম্বে অপহরন চক্রের মুল হোতা, যারা এখন অস্ত্রের মুখে জমির মাটি নিয়ে যাচ্ছে তাদের কে গ্রেফতার পুর্বক এলাকার মাটি ও মানুষের শান্তি নিশ্চিত করা হউক।

 

সর্বশেষ সংবাদ

পুরান ঢাকার চকবাজারে আগুন, ৫৬ লাশ উদ্ধার

ভারুয়াখালীতে স্কুলছাত্রকে অপহরণের চেষ্টা  ‘ভাই গ্রুপের’

আজ আন্তর্জা‌তিক মাতৃভাষা দিবস

মুজিবুর রহমান ও এমপি জাফরের দোয়া নিলেন ফজলুল করিম সাঈদী

মাতৃভাষার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে রাখাইনদের নতুন প্রজন্ম

শুদ্ধ সংস্কৃতির চর্চার মধ্য দিয়ে অপশক্তিকে রুখতে হবে- মেয়র মুজিব

একুশে ফেব্রুয়ারি : প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা

টেকনাফে সাড়ে ১৫ লক্ষ টাকার স্বর্ণালংকার উদ্ধার

চকরিয়ায় শিশু ও নারী নির্যাতন মামলার ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার

২০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজন আটক

এডভোকেট রানা দাশগুপ্তের সাথে কক্সবাজার জেলা নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব ও তাৎপর্য

ঈদগাঁওতে পুজা কমিটির সম্মেলন নিয়ে সংঘাতের আশংকা

কক্সবাজার সিটি কলেজে শিক্ষকদের জন্য আইসিটি প্রশিক্ষণ শুরু

উখিয়ায় হাতির আক্রমণে রোহিঙ্গা যুবকের মৃত্যু

এস আলম গ্রুপের ৩ হাজার ১৭০ কোটি টাকার কর মওকুফ

মালয়েশিয়ায় ভবনে আগুন : বাংলাদেশিসহ নিহত ৬

মহেশখালীতে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে মোস্তফা আনোয়ার

চকরিয়ায় ইয়াবাসহ দুই ব্যবসায়ী আটক

চকরিয়ার চেয়ারম্যান পদে ২ জনসহ ৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল