মঙ্গলবার (৫ ফেব্রুয়ারি) কক্সবাজারের স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকা, অনলাইন গণমাধ্যম ও কয়েকটি জাতীয় পত্রিকায় বিভিন্ন শিরোনামে কক্সবাজার শহরের পুলিশ লাইনের পাশে জেল গেইট এলাকায় দুদকের নেতৃত্বে পাহাড়ে অবৈধ বসতি উচ্ছেদের সংবাদ প্রকাশিত হয়। এসব সংবাদ ও একটি ছবি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদের একাংশে আমি নি¤œস্বাক্ষরকারীকে অবৈধ বসবাসকারি হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে মর্মে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া আমার একটি ছবিও প্রকাশ করা হয়। যাচাই-বাছাই না করে একজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার ও ছবিসহ মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে সম্মানহানি করায় আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সাথে সাংবাদিক ভাইদের যাচাই-বাছাই করে সংবাদ পরিবেশনের অনুরোধ জানাচ্ছি। কারণ নিরপরাধ মানুষের সম্ভ্রম রক্ষাও সাংবাদিকদের নৈতিক দায়িত্ব। কোন সাধারণ নিরপরাধ মানুষ অন্যায়ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে কিনা তাও জাতির বিবেক হিসেবে সাংবাদিকদের লক্ষ্য রাখা উচিত বলে আমি মনে করি। মূলত: কলাতলী বাইপাস সড়কের পুলিশ লাইনের পূর্বপাশে জেল গেইট এলাকায় মীর আহমদের কাছ থেকে ব্যক্তি মালিকানাধীন জমি ক্রয় করে সেখানে দীর্ঘদিন ধরে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছি। স্থিত জমির মালিকানার বিষয়ে কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংজা মৌজায় বি, এস খতিয়ান নং-১৪৯৯৭ আমার নামে চূড়ান্ত প্রচার রয়েছে। এরমধ্যে গত সোমবার সকাল ১১টার দিকে দুদকের নেতৃত্বে স্থানীয় প্রশাসন আমার বাড়ির আশ-পাশে সরকারি জমিতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযান চলাকালে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে হঠাৎ করেই একটি স্বার্থান্বেষী মহল শ্রমিকদের ভুল তথ্য দিয়ে আমার বসতবাড়ির পেছন দিক থেকে ভাংচুর শুরু করে। আমি এসময় বৈধ কাগজপত্র প্রদর্শনের চেষ্টা করলে ওই স্বার্থান্বেষী মহলের ইন্ধনে পুলিশকে ব্যবহার করে আমাকে ধরে নিয়ে গাড়িতে বসিয়ে রাখা হয়। বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর করে ক্ষতিসাধন করা হয়। এক পর্যায়ে বিষয়টি অভিযানে নেতৃত্বদানকারি নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও দুদক কর্মকর্তাদের নজরে আসলে আমাকে ছেড়ে দেয়া হয়। পরবর্তীতে আমার জমি সংক্রান্ত কাগজপত্রও সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা যাচাই-বাছাই করেন। এতে খুব দ্রুত বিদ্যুৎ বিভাগ আমার বাড়ির পুনঃ বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়। এ বিষয়ে অভিযানে থাকা কর্মকর্তাদের সাথে ভুলবুঝাবুঝিরও অবসান হয়েছে। কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের বিষয় যে, বিষয়টিকে কেন্দ্র করে স্বার্থান্বেষী মহলটি আমি অবৈধ বসবাসকারি হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে মর্মে আমার ছবিসহ সংবাদ প্রকাশ করে। এতে আমার মান ক্ষুন্ন হয়েছে। এছাড়া স্বার্থান্বেষী মহলটি দীর্ঘদিন ধরে আমার পেছনে লেগে রয়েছে। মহলটি যেকোন মুর্হুতে ভবিষ্যতে আমার আরও বড় ধরণের ক্ষতি করতে পারে। সুতরাং এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন, সাংবাদিক ও সচেতন মহলকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি। একই সাথে আমার সার্বিক বিষয়ে ভবিষ্যতে যেকোন পদক্ষেপ গ্রহনে যাচাই-বাছাই করার জন্য প্রশাসন ও সাংবাদিক ভাইদের অনুরোধ জানাচ্ছি।

নিবেদক
মোঃ জুবায়ের
পিতা-মরহুম আজিজুর রহমান
জেল গেইট, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •