মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

মানবাধিকার সুরক্ষায় সমাজের বিশিষ্টজন ও বিভিন্ন ধর্মীয় গোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা সবসময় দৃষ্টান্তমূলক ভূমিকা রাখতে পারে। এজন্য তাঁদের সার্বক্ষণিক চোখ কান খোলা রাখতে হবে। এটা মানবাধিকার ক্ষতিগ্রস্থদের প্রতি বিশিষ্টজজনদের করুনা নয়, বরং নৈতিক দায়িত্ব। “সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি উন্নয়নে সংশ্লিষ্টদের করনীয়” বিষয়ক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় মানবাধিকার চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক একথা বলেন। কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে সোমাবার ৪ ফেব্রুয়ারি সকালে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন-শরনার্থী ত্রান ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ আবুল কালাম এনডিসি (অতিরিক্ত সচিব) ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক আল মাহমুদ ফয়জুল কবির (জেলা জজ)। কোথায় স্বর্গ, কোথায় নরক, কে বলে তা বহুদূর? মানুষেরি মাঝে স্বর্গ নরক, মানুষেতে সুরাসুর-কবি’র এই লাইন উল্লেখ করে বক্তারা বলেন- সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির তীর্থভূমি হচ্ছে-কক্সবাজার। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক সভায় যোগ দিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পৌঁছালে জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল তাঁকে পুষ্পস্তবক দিয়ে তাঁকে স্বাগত জানান।আলোচনা সভায় কক্সবাজারের সুশীল সমাজ ও বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী গোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •