আলমগীর মানিক,রাঙামাটি :

পার্বত্য চট্টগ্রামের খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটির বিভিন্ন স্থানে সশস্ত্র তৎপরতার সাথে সরাসরি জড়িত থেকে বিপুল পরিমান চাঁদা আদায়কারি, সরকারী উদ্বর্তন কর্মকর্তাগণসহ পাহাড়ের গণমাধ্যমকর্মীদের প্রাণনাশের হুমকি প্রদানকারি পাহাড়ি সন্ত্রাসী কুনেন্টু চাকমা অবশেষে যৌথবাহিনীর হাতে আটক হয়েছে।

শনিবার বিকেলে রাঙামাটির কুতুকছড়ি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে কুনেন্টকে আটকের পাশাপাশি বিদেশী অত্যাধূনিক গুলিভর্তি রিভলবারসহ নগদ চার লক্ষ পাঁচ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে নিরাপত্তা বাহিনীর উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষ। কুমেন্টু চাকমা পার্বত্য চুক্তি বিরোধী আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট ইউপিডিএফ এর সক্রিয় সশস্ত্র সদস্য বলে নিজেই গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছে।

এদিকে রাঙামাটি কোতয়ালী থানার এসআই আনোয়ার জানিয়েছেন, আটককৃত কুনেন্টু নানিয়ারচরের বহুল আলোচিত উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলার আসামী। তার বিরুদ্ধে অবৈধ অস্ত্রবহন, চাঁদাবাজিসহ হুমকির অভিযোগে মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

এদিকে নিরাপত্তা বাহিনী থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানাগেছে, ০২ ফেব্র“য়ারি ২০১১ তারিখ আনুমানিক দুপুর আড়াইটার দিকে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে রাঙামাটি সদর উপজেলার কুতুকছড়ি উপর পাড়া এলাকায় যৌথ অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্র“প সমর্থিত পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের (পিসিপি) জেলা সভাপতি কুনেন্টু চাকমা (২৩), পিতাধন মোহন চাকমা, সাং-ধামের পাড়া, থানা-জুরাছড়ি, জেলা-রাঙামাটিকে ০১টি বিদেশী পিস্তল, ০৫ রাউন্ড এামুনিশন, চাঁদা আদায়ের নগদ ৪,০৫৮০০- (চার লক্ষ পাঁচ হাজার আটশত) টাকা, ০৪টি মোবাইল ফোন ও ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্র“পের চাঁদা আদায়ের রশিদসহ আটক করা হয়।

সূত্রে জানা যায় যে, আটককৃতরাসহ রাঙামাটির কুতুকছড়ি এলাকায় ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্র“পের চীফ কালেক্টর রবি চন্দ্র চাকমা ওরফে অর্কিড চাকমা ওরফে অর্ণব বাবু, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের আহবায়ক ধর্ম সিংহ চাকমা ইউপিডিএফ (প্রসিত) গ্র“প সমর্থিত কাউখালী উপজেলার সংগঠক সম্রাট চাকমা সশস্ত্র গ্র“পের সদস্য রনজিৎ চাকমাসহ আরও কয়েকজন একত্রিত হয়ে উত্তোলিত চাদা বন্টন সংক্রান্ত গোপন বৈঠক করছে। অভিযান চালিয়ে ০১ জনকে গ্রেফতার করা হলেও যৌথবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে অন্যান্যরা পালিয়ে যায়।

উল্লেখ্য যে, গ্রেফতারকৃত রাঙামাটি পিসিপি’র জেলা সভাপতি কুনেন্টু চাকমা নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার অন্যতম আসামী। পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক রাজনৈতিক দলগুলো তাদের সংগঠনের নামে পার্বত্যাঞ্চলে খুন, গুম, হত্যা, চাঁদাবাজির মাধ্যমে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করে রাজনীতির আড়ালে পার্বত্য এলাকায় বসবাসকারী জনগণের ভাগ্যনিয়ে ছিনিমিনি খেলছে। এছাড়াও ফেসবুকে বিভিন্ন আইডি ব্যবহার করে পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের সদস্যরা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যড়যন্ত্রমূলক বিভিন্ন কার্যক্রম ও স্থানীয় প্রশাসনসহ বিভিন্ন উল্লেখ্যযোগ্য ব্যক্তিবর্গকে হুমকি প্রদান করছে। এদের হাত থেকে পাহাড়ী বাঙ্গালী কেউই রেহায় পায় না। এটি একটি সফল অভিযান এবং পাবর্ত্য চট্টগ্রামে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে যৌথবাহিনীর এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানিয়েছেন নিরাপত্তা বাহিনীর উদ্বর্তন কর্তৃপক্ষ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •