সংবাদদাতা

কক্সবাজার সদরের খরুলিয়ায় সাংবাদিক শাহীন মাহমুদ রাসেলের মায়ের ক্রয়কৃত ৮ শতক জায়গা জবর-দখলে নিতে মরিয়া হয়েছে ভুমিদস্যুচক্র। আদালতে মামলা চলমান, থানায় বৈঠকও চলছে। ইউনিয়ন পরিষদ গ্রাম আদালত সাংবাদিকের পক্ষে রায়ও প্রচার করেন। এমনকি বিরোধপুর্ন জায়গা জবর-দখলমুক্ত রাখতে স্থানীয় মহল্লা কমিটি বরাবর রিসিভারও দেওয়া হয়। এরপরেও ওই প্রভাবশালীচক্র সম্প্রতি উক্ত জায়গা দখলে নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ডনদের শেল্টারে ভাড়াটে অস্ত্রধারী ও সন্ত্রাসী জড়ো করে দখল প্রক্রিয়া অব্যহত রেখেছে।

এ ব্যাপারে এলাকায় কোন সুরাহা না পেয়ে সাংবাদিক রাসেল কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কক্সবাজার সদর থানার পুলিশ ৩১ জানুয়ারি বিকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সাংবাদিকের জায়গায় স্থাপনা কাজ না করতে নির্দেশ দেন পুলিশ।

এমতাবস্থায় থেমে নেই অভিযুক্ত খোকনদের অশুভ তৎপরতা। আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে থানার আদেশ অমান্য করে থেমে থেমে চলছে লুটপাট ও জবর দখলের চেষ্টা।

এদিকে চলমান থানার আদেশ থাকা অবস্থায় প্রতিনিয়ত আসামীদের বেপরোয়া তান্ডব কোন ভাবেই যেন থামছেনা। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ঝিলংজা ইউনিয়নের খরুলিয়া বাজার পাড়া এলাকায়।

জানা যায়, খরিদসুত্রে জায়গার প্রকৃত মালিক কোনার পাড়া এলাকার সাংবাদিক শাহীন মাহমুদ রাসেলের মা ছকুলতাজ বেগম। দীর্ঘ ৩০বছর ধরে ওই সম্পত্তি তিনি ভোগ দখল করে আসছিলেন। গত কয়েক বছর আগে থেকে ওই সম্পত্তির প্রতি লোলুপ দৃষ্টি পড়ে স্থানীয় ইউসুফ আলী নামক ব্যক্তির। জমির মালিক বাদী হয়ে কক্সবাজার জেলা জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। যার অপর মামলা নং-৯১/১২। বর্তমানে মামলটি আদালতে বিচারাধীন। একই বিষয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় থানায় দু’পক্ষের কাগজ পত্র জমা দিয়ে শুক্রবার সকালে বৈঠকের দিনক্ষন ছিল।

সরেজমিন ঘুরে এলাকার অনেকেই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, সাংবাদিক রাসেলের পরিবারের ভোগ দখলীয় জায়গায় হঠাৎ করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে  দখলবাজচক্র । এ খবর পেয়ে ওই জায়গায় সাংবাদিক রাসেল গেলে ইউসুফ আলী ও তার সন্ত্রাসীপুত্র লিয়াকত ও শওকত (পুইত্যা)সহ ১৫/২০জনের অস্ত্রধারীকে নিয়ে তাঁর উপর তেড়ে যায়। রাসেল প্রাণ বাঁচাতে চলে গেলে শ্রমিক দিয়ে মাটি কাটা ও নির্মান কাজ চালিয়ে যায় চিহ্নিত দখলবাজ চক্রটি।

এসব ভূমিদস্যুদেরকে দখলে বাধা প্রদান করার কারণে সাংবাদিক রাসেলের উপর আসে হত্যার হুমকিও। দখলবাজদের অব্যাহত হুমকিতে ভীত সন্তস্ত হয়ে পড়েছে ওই সংবাদিক রাসেল। মাদক সম্রাটদের ছত্রছায়ায় চক্রটির হুমকি-ধামকিতে ভুক্তভোগী রাসেল ভয়ে স্থবির হয়ে পড়েছে। নীরব কান্নায় বোবা হয়ে গেছে সাংবাদিকের পক্ষের পুরো পরিবার।

এদিকে জায়গা দখল-বেদখলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে ফের বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা। প্রশাসনের হস্থক্ষেপ জরুরী বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •