cbn  

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

টেকনাফ মডেল থানার সাব ইন্সপেক্টর (এসআই) মোঃ শরিফুল ইসলাম (নিরস্ত্র) সাহসিকতার জন্য বাংলাদেশ পুলিশের মর্যাদাপূর্ণ পদক পিপিএম (প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল) পাচ্ছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের জন নিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ শাখা-২ এর ২৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার উপসচিব ফারজানা জেসমিনের স্বাক্ষরে ১৯/৬৮/১(১১) নম্বর স্মারকে জারীকৃত এক প্রজ্ঞাপনে কক্সবাজারের টেকনাফ মডেল থানার এসআই মোঃ শরিফুল ইসলাম (বিপি:৮৪০৩০৬৪৩৫৭) সহ সারাদেশে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে সর্বমোট ৩৪৯ জন বিপিএম ও পিপিএম পুরস্কারের জন্য চুড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছেন। প্রজ্ঞাপনে কক্সবাজার জেলার স্বনামধন্য পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন সহ জেলা পুলিশের আরো ৩ জন পুরস্কারের জন্য চুড়ান্তভাবে মনোনীত হয়েছেন। পুরস্কৃাররে জন্য মনোনীত অন্যানরা হলেন- টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ, কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার। এছাড়া কক্সবাজার জেলায় কর্মরত র‍্যাব-৭ এর মেজর মেহেদী এবং বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কোম্পানি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট শাহেদ মাহতাবও পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন।
টেকনাফ মডেল থানার এসআই মোঃ শরিফুল ইসলাম ৬ মাসের বিভাগীয় প্রশিক্ষণে বর্তমানে টাঙ্গাইল পুলিশ একাডেমীতে রয়েছেন।পিপিএম পুরস্কার প্রাপ্তির জন্য মনোনীত হওয়ার পর এসআই মোঃ শরিফুল ইসলাম এ প্রতিবেদকের কাছে মুঠোফোনে তাঁর প্রতিক্রিয়ায় মহান আল্লাহতায়লার কাছে শোকরিয়া জ্ঞাপন করে বলেন- সাহসিকতা ক্যাটাগরিতে তাঁকে এ বিরল পুরস্কারের জন্য মনোনীত করে তাঁর ত্যাগ ও কর্মের যথার্থ মূল্যায়ন করা হয়েছে। এতে তাঁর কাজের গতি ও উৎসাহ আরো বাড়বে বলে এসআই মোঃ শরিফুল ইসলাম দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি এজন্য টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের সকল কর্মকর্তা ও সদস্য, টেকনাফের সকল নাগরিককে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এসআই মোঃ শরিফুল ইসলাম তাঁকে প্রদত্ত এই বিরল সম্মানের জন্য চট্টগ্রাম রেন্ঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক (বিপিএম-পিপিএম), কক্সবাজারের স্বনামধন্য পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন (বিপিএম) টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ (বিপিএম-বার) সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। পিপিএম পুরস্কারের জন্য চুড়ান্ত মনোনীত এসআই মোঃ শরিফুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর জেলায়। তিনি বিবাহিত এবং তিন পুত্র সন্তানের জনক। তাঁর কর্মজীবনের আরো সাফল্যের জন্য মোঃ শরিফুল ইসলাম সবার কাছে দোয়া ও সহযোগিতা চেয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •