cbn  

সিবিএন ডেস্ক

দশম সংসদের পাঁচ বছর পূর্ণ হলো মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি)। নতুন সরকারের প্রথম অধিবেশন শুরু হবে আগামী ৩০ জানুয়ারি। একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরুর সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সংসদ সচিবালয়।

বছরের প্রথম অধিবেশনে রেওয়াজ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি ভাষণ দেবেন। এরই মধ্যে রাষ্ট্রপতির ভাষণের খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত হয়েছে। রাষ্ট্রপতির ভাষণে সরকারে উন্নয়ন কাজের বর্ণনা এবং অাগামী দিনের নির্দেশনা থাকে।

রাষ্ট্রপতির অাগমন উপলক্ষে প্রতিদিনই চলছে রিহারসেল। অন্যান্য সময় দক্ষিণ প্লাজা দিয়ে প্রবেশ করলেও প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি ব্যবহার করবেন উত্তর প্লাজার ভিঅাইপি গেট। সে কারণে উত্তর প্লাজা থেকে রাষ্ট্রপতির দফতর পর্যন্ত লাল গালিচা বিছানো হয়েছে। রাষ্ট্রপতির অাগমন উপলক্ষে বিউগলে সুর বাজানো হবে।

প্রথম অধিবেশনের প্রথম দিনই একাদশ সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার নির্বাচন হবে। এবার স্পিকার পদে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বহাল থাকলেও পরিবর্তন অাসতে পারে ডেপুটি স্পিকার পদে। বুধবার অধিবেশনের শুরুতেই স্পিকার নির্বাচন করা হবে। এসময় অধিবেশনের সভাপতিত্ব করবেন ডেপুটি স্পিকার।

কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী স্পিকার নির্বাচনের কমপক্ষে এক ঘণ্টা আগে যে কোনো সদস্য সচিবকে সম্বোধন করে লিখিতভাবে একটি প্রস্তাব নোটিশে দিতে পারবেন। এই নোটিশ তৃতীয় একজনে সমর্থিত হবে এবং প্রস্তাবিত সদস্যের একটি বিবৃতি ও এই নোটিশের সঙ্গে থাকবে।

স্পিকার নির্বাচনের পর সংসদে কিছু সময়ের জন্য বিরতি দেওয়া হবে। এই বিরতিতে রাষ্ট্রপতি নব নির্বাচিত স্পিকারকে শপথ পাঠ করাবেন। এরপর নতুন স্পিকার সভাপতির চেয়ারে বসে প্রথমেই অধিবেশনের জন্য প্যানেল সভাপতি মনোনয়ন দেবেন। এরপর শোক প্রস্তাব পাঠ করবেন।

কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী সিটিং এমপি মারা গেলে তার ওপর অালোচনা শেষে সংসদ অধিবেশন মূলত বির বিধান রয়েছে। তবে অাওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ অাশরাফুল ইসলাম যেহেতু একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হলেও শপথ নেননি, তাই তাকে সিটিং এমপি হিসেবে দেখার সুযোগ নেই।
এক্ষেত্রে সৈয়দ অাশরাফুল ইসলামের ওপর শোক প্রস্তাবের অালোচনার পর মুলতবি হবে কি না এ নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিলেও সংবিধানে কোনো বিধি-নিষেধ নেই। রেওয়াজ অনুযায়ী যেহেতু শোক প্রস্তাবের ওপর অালোচনা হয় তাই এক্ষেত্রে অালোচনা হতেই পারে।

সৈয়দ অাশরাফুল ইসলাম অাওয়ামী লীগের দুইবারের সাধারণ সম্পাদক এবং গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হওয়ায় তার ওপর শোক প্রস্তাবের অালোচনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংসদ সচিবালয়।

এ বিষয়ে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, সিটিং এমপি না হলেও সৈয়দ অাশরাফুল ইসলামের কথা চিন্তা করে শোক প্রস্তাব হবে এবং বিরতি দিয়ে অাবার অধিবেশন শুরু হবে।
কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির ভাষণের পর সংসদের অধিবেশন মুলতবি হয়ে যায়। এরপর দিন সংসদের চিফ হুইপ রাষ্ট্রপতির ভাষণে অানিত ধন্যবাদ প্রস্তাব উত্থাপন করবেন, সেই প্রস্তাবের ওপর দীর্ঘ অালোচনা শেষে অধিবেশনের শেষ দিকে তা পাস হবে।

উল্লেখ্য গত ৩০ ডিসেম্বর ২৯৯ সংসদীয় আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এক প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে গাইবান্ধা-৩ আসনের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছিল।  পরে অবশ্য সেই অাসনে অাওয়ামী লীগের সাবেক এমপি ডা. ইউনুস অালী সরকার নির্বাচিত হয়েছেন। যদিও তিনি এখনো শপথ নেননি।

নির্বাচনের পর গত ৩ জানুয়ারি নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যগণ শপথ নেন। সেদিন চার ধাপে ২৮৯ জন শপথ নেন। পরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান শপথ নেন। এই নিয়ে মোট ২৯০ জন সংসদ সদস্য শপথ নেন। শপথ নেননি বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৮ জন এবং সৈয়দ অাশরাফুল ইসলাম মারা যাওয়ায় আসনটিতে পুনরায় ভোট হবে, এছাড়া গাইবান্ধার স্থগিত হওয়া অাসনে নির্বাচিত সদস্য শপথ নেননি।  সবাই শপথ নিলে ৩০০ অাসন পূর্ণ হবে।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ পেয়েছে ২৫৭টি আসন। জাতীয় পার্টি পেয়েছে ২২টি আসন। বিএনপি পেয়েছে ৫টি আসন। ওয়ার্কার্স পাটি (বাসদ) পেয়েছে ৩টি আসন, গণফোরাম ২টি (এর মধ্যে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মোহাম্মদ মনসুর এবং গণফোরাম নিজস্ব প্রতীক উদীয়মান সূর্য নিয়ে মোকাব্বির খান নির্বাচিত হয়েছেন), বিকল্প ধারা বাংলাদেশ ২টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ২টি, তরিকত ফেডারেশন ১টি, জাতীয় পার্টি (জেপি) ১টি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ৩টি আসনে জয়ী হন।

এর অাগে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনে বিএনপিসহ বড় একটি রাজনৈতিক জোটের ভোট বর্জনের মধ্য দিয়ে দশম সংসদ গঠিত হয়েছিল। ওই বছরের ২৯ জানুয়ারি দশম সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হয়, সে হিসেবে দশম সংসদের মেয়াদ ৫ বছর পূর্ণ হচ্ছে মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি)।

-বাংলা নিউজ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •