চট্টগ্রাম সংবাদদাতা:
কোনো জায়গায় দুর্নীতি হওয়ার আগেই তা প্রতিরোধ করতে চান দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।
তিনি বলেছেন, ‘দুদকের মামলা হওয়া মানেই একটি ক্যান্সার। আমরা কারও বিরুদ্ধে মামলা করতে চাই না। আমরা কোনো মামলা কমিশন নই।’
রোববার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘ক্যান্সার হলে যেমন সহায়-সম্বল সব শেষ হয়ে যায়। দুদকের মামলায় পড়লেও সব শেষ হয়ে যায়।’
তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রামের স্কুলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ শুনেছি তাই আমি এসেছি। কারণ কোয়ালিটি শিক্ষার ব্যাপারে কোনো ছাড় নয়। কিছু কিছু স্কুলে বাচ্চা থাকে, শিক্ষকরা থাকেন না। আমাদের বাচ্চাদের শিক্ষা নিয়ে কারও অবহেলা সহ্য করা হবেনা।
দুদক চেয়ারম্যান বলেন, অনেকে বলেন- শিক্ষায় দুদুকের কাজ কী? শিক্ষায় দুদকের কাজ নেই, দুর্নীতিতে আছে। আইনের বাইরে গিয়ে কাজ করলেই সেটা অপরাধ। এবং সেটা দুদক দণ্ডবিধির ১৬৬ ধারায়ও অপরাধ।’
ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘কয়েকটি স্কুলে গিয়ে ভালো লেগেছে। তারা টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করা কোনো শিক্ষার্থীকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় সুযোগ দেয়নি। তবে নবম শ্রেণিতে এক বা একাধিক বিষয়ে ফেল করা শিক্ষার্থীদের টাকার বিনিময়ে দশম শ্রেণিতে প্রোমোশন দেওয়া হয়েছে। এটা অনৈতিক। শিক্ষাক্ষেত্রে অনৈতিকতার কোনো স্থান থাকতে পারে না।’
বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, চট্টগ্রাম রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক খন্দকার গোলাম ফারুক, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান, চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন, পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনাসহ বিভিন্ন সরকারি দফতরের প্রধানরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •