আবদুল মজিদ,চকরিয়া :
কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার নারী শিক্ষার প্রধান শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চকরিয়া আবাসিক মহিলা ডিগ্রী কলেজে শিক্ষার মান ও অব্যাহত সাফল্য ধরে রাখার লক্ষে কলেজে এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিবর্তনের দাবী জানিয়েছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। কেন্দ্র পরিবর্তন না হলে কলেজের প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত হুমকির মুখে পড়বে।
প্রাপ্ত তথ্যে ও কলেজ কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, বছরে সরকারি ছুটি রয়েছে ৮৪দিন এবং সাপ্তাহিক শুক্রবার বন্ধ রয়েছে আরো ৫২দিন। এছাড়া কলেজের এইচএসসি পাবলিক পরীক্ষা কেন্দ্র, বি.এ,বি.এস.এস ৩টি এবং বি.এ (অনার্স) ৪টি পরীক্ষা কেন্দ্র রয়েছে অত্র কলেজে। বিগত বছর থেকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (জেএসসি) কেন্দ্র করেছে এই কলেজে। যার কারণে অন্তত ৭মাস পর্যন্ত কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রাখতে হয় কলেজ কর্তৃপক্ষকে। এসবের পরও নতুন করে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র করা হলে অতিরিক্ত আরো ১মাসের অধিক কলেজ বন্ধ রাখতে হচ্ছে। ফলে কলেজের শিক্ষার্থীদের যাবতীয় শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রাখতে হচ্ছে।
চকরিয়া আবাসিক মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আলহাজ্ব এসএম মনজুর জানান, পরীক্ষা কেন্দ্রীক কলেজ ৭মাস বন্ধ রাখতে হয়। এর বাহিরে সরকারি ৮৪দিন ছুটি ও ৫২দিন শুক্রবারসহ বন্ধ রাখতে হয় আরো ১৩৬ দিন। তাহলে আমরা শিক্ষার্থীদের কিভাবে পাঠদান করাতে পারি। এ অবস্থায় যদি স্কুল পর্যায়ের এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র কলেজে নতুন কেন্দ্র দেওয়া হয়, তাহলে মহিলা কলেজের পাসের হারসহ কলেজ শিক্ষা ব্যবস্থাকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করে দেওয়ার সামিল হবে। তিনি মহিলা কলেজে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র না দেওয়ার জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড,চট্টগ্রামসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেছেন বলে জানান। এরপরও মহিলা কলেজে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র অব্যাহত রাখায় কলেজ কর্তৃপক্ষ, শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
উল্লেখ্যযে, চকরিয়া আবাসিক মহিলা ডিগ্রী কলেজ গত বছরের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে উপজেলা পর্যায়ে শীর্ষ স্থান অর্জন করে। সাফল্যের এ ধারাবাহিকতা রক্ষায় মহিলা কলেজ থেকে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিবর্তনের দাবী জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •