মুহাম্মদ হোছাইন:
আসন্ন উখিয়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে উখিয়ার প্রত্যন্ত জনপদের গণমানুষের প্রিয় মুখ সাবেক ছাত্রনেতা ও কক্সবাজার জেলার বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা মুহাম্মদ শাহ আলম প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।
২৫ জানুয়ারি বাদে জুমা পারিবারিক ও সুশীল সমাজের সাথে কৌশল বিনিময়ে এবং ছাত্র ও শ্রমিক জনতার এক সমাবেশে এমন ঘোষণা দেন তিনি। উখিয়ার মাটি ও মানুষের সাথে দীর্ঘ সময়কাল আন্দোলন সংগ্রামের সারথী মুহাম্মদ শাহ্ আলম এ সময় বিভিন্ন অঙ্গীকার করে বলেন, আমি আসন্ন উপজেলা পারিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি শুধুমাত্র জনগণের দৌড়গোড়ায় সেবা পৌঁছে দিতে।
অন্যদিকে উখিয়ার হাজার হাজার অবহেলিত তরুণ উদ্যোক্তা ও বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকুরিতে মেধাবী কর্মঠ স্থানীয় ছেলে মেয়েদের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় শতভাগ অগ্রাধিকার নিশ্চিত করতে যুগান্তকারী প্রদেক্ষেপ নেয়ার প্রত্যয়ও ব্যক্ত করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, এলাকার শ্রমিক জনতা তাদের অধিকার নিশ্চিত ও পরিবহন সেক্টরে আরো সুন্দর করে সাজানো এবং বয়স্ক মুরুব্বীদের বয়স্কভাতাসহ যাবতীয় সুবিধা সুচারুভাবে দেয়ার জন্য এবারে আমার উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়া। এমনকি গরিব মেধাবী ছাত্রদের সার্বিক সহযোগীতার জন্য বিশেষ তহবিল গঠন করে তাদের পড়ালেখার মান নিশ্চিত করা হবে।
স্থানীয় শ্রমিক সংগঠনের নেতা নুরুল আলম বলেন, ছাত্র-যুব সমাজের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল আমাদের প্রিয় শ্রমিক নেতা মুহাম্মদ শাহ্ আলমকে উখিয়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান করার। আজ সময় এসেছে উখিয়ার গরীব মেহনতি মানুষের পক্ষে মুহাম্মদ শাহ্ আলম ভাইয়ের নেতৃত্বে আধিকার প্রতিষ্ঠার। সে লক্ষ্যে শ্রমিক জনতার দাবির প্রেক্ষিতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে “নাগরিক ফোরাম”এর ব্যানারে আমরা নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবো।
তিনি উখিয়ার হলদিয়া পালংয়ের ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক পরিবার রুমখাঁ মাতবর পাড়ার মরহুম বশির আহমদ সওদাগরের কনিষ্ঠ সন্তান ও বর্তমান মন্ত্রীপরিষদ সচিব শফিউল আলমের নিকট আত্মীয়। এছাড়া তাঁর রয়েছে সাবেক ছাত্র নেতা হিসেবে অনেক সুনাম-খ্যাতি এবং কোটবাজার-উখিয়াতে বিশিষ্ট শ্রমিক ও পরিবহন মালিক সমিতির নেতা হিসেবেও মুহাম্মদ শাহ্ আলম সমধিক পরিচিত।
তিনি ছাত্র নেতৃত্বের বিদায়ের পর থেকে কক্সবাজার জেলা ও বিশেষ করে উখিয়া টেকনাফে পরিবহন মালিক সমিতি ও শ্রমিকদের অধিকার আদায়ে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখেন। বর্তমানে তিনি উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ কর যাচ্ছেন।

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •