হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী :
অনেকটা হঠাৎ করেই চলে গেলেন রামুর গর্জনিয়ার পশ্চিমবোমাংখিল গ্রামের শাকের আহমদ চাচা। তাঁর মৃত্যু সংবাদ শুনে অনেক্ষণ নিরব থাকলাম, আর চিন্তা করতে লাগলাম তাঁর সাথে অনেক স্মৃতির কথা। মনে হলো মানুষ কি এভাবেই চলে যায় না ফেরার দেশে।

বৃহস্পতিবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় স্ট্রোক করে তিনি মারা যান। যখন স্ট্রোক করেন তখন তিনি গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে একটি শালিসী বৈঠকে ছিলেন। পুলিশ ফাঁড়ি থেকে রামু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শাকের আহমদকে মৃত ঘোষণা করেন। এ খবর নিজ বাড়ি ও আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে শোকাবহ পরিবেশ সৃষ্টি হয়। তাঁর পরিবারের প্রতিটা সদস্য কান্নায় ভেঙে পড়েন।

গ্রামের লোকজন বলছেন- ‘ব্যাক্তি জীবনে ফেমিলী কেয়ারিং, বন্ধুবাতসল, পরোপকারি, কর্মঠ, দায়িত্বশীল ও ১০০ ভাগ বিশ্বাসী একজন মানুষ ছিলেন শাকের আহমদ। তিনি সব সময় খারাপকে সভয়ে এড়িয়ে সুন্দরকে লালন করতেন। মৃত্যুকালে  স্ত্রী, দুই ছেলে ও তিন কন্যা সন্তান রেখে গেছেন।’

শুক্রবার (২৫ জানুয়ারি) সকাল এগারটায় পশ্চিমবোমাংখিল কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ মাঠে মরহুমের জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে ইমামতি করেন- গর্জনিয়া ফয়জুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা মোহাম্মদ নূরউল্লাহ। মরহুমের নাতি এরশাদ উল্লাহ’র পরিচালনায় নামাজের আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান তৈয়ব উল্লাহ চৌধুরী, রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফজলুল্লাহ মোহাম্মদ হাসান, গর্জনিয়া ফয়জুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা আবু তাহের, জামাতা কেফায়েত উল্লাহ, বড় ছেলে ইসমাইল হোসাইন ও স্বজন ফয়েজ উল্লাহ। জানাজা নামাজে সর্বস্থরের মানুষের ঢল নামে। পরে পারিবারিক কবরস্থানে মরদেহ দাফন করা হয়।

এদিকে শাকের আহমদের মৃত্যুতে- শোকাহত পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

পৃথক পৃথক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ করেছেন- গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নুরুল আলম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মোহাম্মদ ইউছুফ, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি হাফেজ আহমদ, সহসভাপতি জিয়াউল হক জিয়া, যুবলীগ নেতা শাহরান চৌধুরী মারুফ, ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি মিজানুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী, ছাত্রলীগ নেতা তানজীদ রায়হান, ইকবাল হোসাইন স্বাধীন, ইনজামাম উল হক চৌধুরী প্রমূখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •