সংবাদদাতা:
‘কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা রাখা আপনার আমার সকলের নৈতিক দায়িত্ব’ স্লোগানে পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে সৈকত। বুধবার বিকালে সুগন্ধা বীচ ক্ষুদ্র খাদ্য ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিডেট’র ব্যানারে কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান-২০১৯ পালন করেন ব্যবসায়ীরা। নিজেদের বীচ নিজেরাই পরিস্কার করতে এই উদ্যোগ নেন এসব ব্যবসায়ীরা। এসময় তারা পুরো সুগন্ধা পয়েন্ট এলাকায় পরিচ্ছন্নতার অভিযান চালান।

সুগন্ধা বীচ ক্ষুদ্র খাদ্য ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিডেট এর সভাপতি রহিম উল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কালামের নেতৃত্বে সমিতির সকল সদস্য পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশ নেন। এরমধ্যে সমিতির সহ-সভাপতি আবদুল মালেক, সহ সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, কোষাধ্যক্ষ আবুল হাসেম, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর, প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ সোহাগ, দপ্তর সম্পাদক সুমন দাশ, সদস্য যথাক্রমে- হাবিব, টিটু, খুকী রাণী দে, দয়া রাণী দে, আপন কান্তি দে, মোহাম্মদ শাহীন, ফরিদুল আলম, মো. বেলাল, শ্যামল কান্তি , নুরুল আমিন ও ব্যবসায়ী লাল মিয়া প্রকাশ লালুসহ অনেকেই অংশ নেন এই অভিযানে।

সমিতির সভাপতি রহিম উল্লাহ বলেন, এই বীচ আমাদের। আমরা যদি এই বীচ পরিস্কার না রাখি; তাহলে কেউ রাখবে না। এখানে দেশি বিদেশি হাজার হাজার পর্যটক আসে প্রতিনিয়ত। অনেকেই বীচে ময়লা আবর্জনা ফেলে। আমরা যদি এগিয়ে গিয়ে ময়লা গুলো পরিস্কার করি; তাহলে অন্যরাও এগিয়ে আসবে। মূলত পর্যটকদের সেবা দেওয়া আমাদের দায়িত্ব।

পর্যটন সেলের দায়িত্বপ্রাপ্ত কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয় বলেন, সুগন্ধা পয়েন্টের প্রতিটি ব্যবসায়ী সমিতি ও সংগঠন প্রায় সময় ভালো কাজে এগিয়ে আসে। তেমনি ‘সুগন্ধা বীচ ক্ষুদ্র খাদ্য ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিডেট’ এর সদস্যরাও বীচ পরিস্কার করতে এগিয়ে এসেছে। এতে তাদের ধন্যবাদ জানায়। সবাই চায় সৈকত পরিস্কার থাকুক। এতে সবার আগে নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে। নিজে পরিবর্তন হলে সৈকত এলাকায় ময়লা আবর্জনা ফেলতে সংকোচ বোধ করবে ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •