বিশেষ প্রতিবেদক:
আসন্ন উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতাদের পরামর্শ ও তৃণমূলের সমর্থনে ভাইসচেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা আমজাদ হোসেন ছোটন রাজা। নেতাকর্মীদের অকুণ্ঠ সমর্থন ও গ্রহণযোগ্যতায় মাঠের পরীক্ষিত কর্মী হিসেবে তিনি দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করেন। শ্রমিক নেতা ছোটন ইতোমধ্যে দলের জেলা পর্যায়ের বেশ কয়েকজন নীতি নির্ধারকের পক্ষ থেকে ‘সবুজ সংকেত’ পেয়েছেন বলে নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গেছে।
খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে ছোটন রাজা নির্বাচন করার পক্ষে মত দিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধারা। দল ও সাধারণ মানুষের জন্য ‘নিবেদিত কর্মী’ হিসেবে তাকে চান অনেকে। শুধু দলের নেতাকর্মী নয়, সর্বস্তরের মানুষ তাকে ভালবাসে। তরুণ প্রজন্মও চায় ছোটন রাজার মতো তরুণ নেতৃত্ব। পুরাতন নেতৃত্ব ঝেড়ে ফেলে নতুনত্বের প্রতি ঝোঁক রয়েছে এই প্রজন্মের ভোটারদের।
রাজনীতির উর্ধ্বে সর্বদলের কাছে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি ছোটন রাজা প্রার্থী হলে ভোট টানতে পারবে ভিন্ন ঘরানার লোকদের। কক্সবাজার সদর উপজেলার আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সহযেগি সংগঠনের নেতারাও তার পক্ষে। গত এক সপ্তাহ ধরে মাঠ জরিপে এমন তথ্য উঠে এসেছে। বৃহত্তর ঈদগাঁওতে ‘ক্লিন ইমেজ’ সম্পন্ন ব্যক্তি হিসেবে ছোটন রাজা পরিচিত। তার নেতৃত্বে স্বতঃস্ফূর্ততা, উদারতা, মানবতাবোধ রয়েছে। সর্বোপরী তিনি একজন ‘আগাগোড়া সোজা-সরল’ মানুষ।
এ প্রসঙ্গে জানতে কথা হয় সফল মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, কক্সবাজারের প্রবীন রাজনীতিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীর সঙ্গে। তিনি বলেন, ছোটন রাজার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এসটিএম রাজা মিয়া আমার বন্ধু। একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে ছোটন রাজা মেধা, বিচক্ষণতা ও রাজনৈতিক প্রজ্ঞায় প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা রাখে। সে শতভাগ ত্যাগী ও নির্ভেজাল কর্মী। তার মতো নেতৃত্ব সমাজ ও দলের জন্য প্রয়োজন। মুক্তিযোদ্ধারা ছোটনের পক্ষে কাজ করবে।
মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সদর উপজেলা কমান্ডার ডা. শামসুল আলম বলেন, মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের যে কোন প্রয়োজনে ছোটন রাজাকে ছুটে যেতে দেখেছি। তার মধ্যে নেই লোভ লালসা ও প্রতিহিংসা। মানুষের জন্য আজীবন নিবেদিত পিতার যোগ্য ছেলে ছোটন রাজার পক্ষে আমাদের অকুণ্ঠ সমর্থন রয়েছে।
সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক লুৎফুর রহমান আজাদ লুতুর কাছে জানতে চাইলে বলেন, ছাত্র রাজনীতি থেকে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামের মাঠে ছোটন রাজার শক্তিশালী ভূমিকা রয়েছে। বৃহত্তর ঈদগাঁওর প্রতিটা জনপদে তিনি পরিচিত। প্রতিষ্ঠিত রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান হিসেবে তিনি যোগ্য প্রার্থী। তিনি বলেন, দলের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে যাকে মনোনয়ন দেয়া হবে তার পক্ষে আমরা কাজ করব।
ভারুয়াখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাইন উদ্দিন প্রতিবেদককে মুঠোফোনে বলেন, রাজনীতির মাঠে জয়ী হতে জনপ্রিয়তা ও ক্লিন ইমেজের প্রার্থীর বিকল্প নেই। ছোটন রাজা এসব বিবেচনায় যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তি। তিনি উদার নেতৃত্বে বিশ্বাসী। সব স্তরের মানুষের সাথে তার হৃদ্যতা রয়েছে।
সম্ভাব্য প্রার্থীতার বিষয়ে জানতে চাইলে পোকখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজাহের আহমদ বলেন, বৃহত্তর ঈদগাঁওর সব এলাকায় পরিচিত ব্যক্তি ছোটন রাজা। তিনি দলের জন্য যেমন, সাধারণ মানুষের জন্যও তেমন নিবেদিত। প্রয়োজনে তাকে পাশে পাওয়া যায়।
ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বলেন, শ্রমিক সমাজের দুঃখ-দুর্দশায় সর্বদা পাশে থাকেন ছোটন রাজা। সবাইকে সাধ্যমতো সাহায্য ও সহযোগিতা দিয়ে আগলে রেখেছেন। বিতর্কহীন নেতৃত্ব হিসেবে তার পক্ষে আমরা ঐক্যবদ্ধ।
কক্সবাজার পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মানবাধিকার কর্মী মোহাম্মদ আলী মুন্না বলেন, নেতৃত্বের জন্য বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য দরকার। সবশ্রেনীর মানুষের সাথে নেতাদের মিশতে হয়। এসব গুণ ছোটন রাজার মধ্যে বিদ্যমান। মানবাধিকার, মানবতাবোধ ও গ্রহণযোগ্য নেতৃত্ব বিবেচনায় ছোটন রাজা প্রার্থী আলোচনায় সবার শীর্ষে। আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কান্ডারীর সন্তান হিসেবে আমরা তার পক্ষে কাজ করব।
একইভাবে সম্ভাব্য প্রার্থীতা বিষয়ে ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুশ শুক্কুর মেম্বার, সদর উপজেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক কায়সারুল আলম চৌধুরী মুন্না, জাতীয় শ্রমিক লীগ পোকখালী ইউনিয়ন শাখার সভাপতি এম রেজাউল করিম টিপু, ঈদগাঁও ইউনিয়ন সভাপতি এনায়েত উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ, জালালাবাদ ইউনিয়ন সভাপতি ওজির আলী, সাধারণ সম্পাদক ইউছুপ আলী, ইসলামপুরের মোজাম্মেল হক, প্রবাসী বঙ্গবন্ধু পরিষদ নেতা জসিম উদ্দিন, শ্রমিক নেতা আবদুল বাসেত, সাকিবুল হাসান রুবেলসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের অন্তত ৫০ জন নেতাকর্মীর কাছে জানতে চাওয়া হয়। তারা সবাই বলেছেন, ছোটন রাজাই ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপযুক্ত। বয়সের তুলনায় অনেক কাজ করেছেন। তিনি প্রার্থী হলে বিজয় নিশ্চিত।
প্রার্থীতা বিষয়ে জানতে চাইলে আমজাদ হোসেন (ছোটন রাজা) বলেন, ছাত্র জীবন থেকে আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে বিশ্বাসী। দলীয় নীতিতে আমি অটুট এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমার জীবনের অধিকাংশ সময় দল ও মানুষের প্রয়োজনে ব্যয় করি। দলসহ সবশ্রেনীর মানুষের পাশে ছিলাম, আছি, থাকবো।
তিনি বলেন, মানবসেবা করার স্বপ্ন আমার দীর্ঘদিনের। ক্ষমতা পেলে আমি সেবা দিতে পারব। দলের নীতিনির্ধারকরা প্রার্থীতা নির্বাচনে আমাকে বিবেচনা করবে বলে আশাবাদি।
আমজাদ হোসেন ছোটন রাজা কক্সবাজার সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, কক্সবাজার সরকারি কলেজ সংসদের সাবেক ভিপি, প্রয়াত জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা এসটিএম রাজা মিয়ার সুযোগ্য সন্তান।
তিনি ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। বর্তমানে বৃহত্তর ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি পদে আছেন।
এছাড়া আমরা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক, বৃহত্তর ঈদগাঁও জীপ মালিক সমিতির সভাপতি, পাঁহাসিয়াখালী তালিমুল কোরআন দাখিল মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি, বখতার আহমদ কেজি স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে আছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •