ইমাম খাইর, সিবিএন:
ট্রফিক পুলিশের হয়রানী বন্ধ, পৌরসভার টমটম শ্রমিকদের স্বার্থ বিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিলসহ ৩ দফা দাবীতে কক্সবাজার শহরে বিক্ষোভ করেছে টমটম চালক-শ্রমিকরা।
মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারী) দুপুরে শহরের প্রধান বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
শ্রমিক নেতা রুহুল কাদের মানিকের নেতৃত্বে বিক্ষোভে টমটম মালিক, চালক, শ্রমিকেরা স্বতঃস্ফূর্ত অংশ গ্রহণ করে।
এদিকে, পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই শহরে টমটম চলাচল বন্ধ রাখায় দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে সাধারণ মানুষকে।
কক্সবাজার শহর ‘টমটমের শহর’ হিসেবে অনেকে মনে করে। অতিরিক্ত টমটমের কারণে সদা যানজট লেগেই থাকে। কিন্তু মঙ্গলবার সকাল থেকে চিরচেনা টমটমের শহরে কোথাও টমমটমের দেখা মেলেনি। পুরো সড়ক ফাঁকা। কর্মমুখি মানুষ হেঁটে কর্মে চলছে। স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের পড়তে হয়েছে ভোগান্তিতে। এই সুযোগে অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে সিএনজি ও রিক্সাওয়ালারা।
একটি সুত্রে জানা গেছে, ২ শিফটে টমটম চালানের বিষয়ে কক্সবাজার পৌরসভার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ১ দিনের কর্মবিরতি শুরু করেছে টমটম মালিক, চালক ও শ্রমিকরা।
মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে তাদের কর্মসূচি শুরু হয়েছে। দাবীর পক্ষে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ, শেষে জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দেবে টমটম মালিক ও চালকরা।
শ্রমিক নেতা রুহুল কাদের মানিকের কাছে জানতে চাইলে বলেন, কক্সবাজার পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ২ শিফটে টমটম চালানোর যে সিদ্ধান্ত দিয়েছে তাতে মালিক-চালকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। শিফটিং-এ গাড়ির ভাড়াও উঠবেনা। অনেক শ্রমিক বেকার হয়ে যাবে।
তিনি বলেন, আগামী জুন মাস পর্যন্ত টমটম লাইসেন্স নবায়নের সময় থাকার পরও পথ থেকে আটক করা হচ্ছে। নাম্বারপ্লেট খুলে নিয়ে যাচ্ছে পৌর কর্তৃপক্ষ। এই সুযোগে ট্রাফিক পুলিশ তাদের হয়রানী করছে।
পৌরসভার মাধ্যমে টমটমে রং করা সঠিক হচ্ছেনা। তাতে গাড়ি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। প্রয়োজনে নিজেরাই রং করিয়ে নেবে বলে জানান শ্রমিক নেতা মানিক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •