উখিয়া সংবাদদাতা : রোহিঙ্গার কারনে ক্ষতিগ্রস্ত উখিয়া-টেকনাফের অধিকার ও অস্তিত্ব রক্ষার দাবিতে আন্দোলনের ডাক দেওয়া “জাগো উখিয়া” প্রাথমিকভাবে উখিয়া উপজেলার বেকারদের তালিকা প্রণয়ন কার্যক্রম উদ্বোধন করেছে। এ কর্যক্রম চলবে ২৩ জানুয়ারি রাত ৯ টা পর্যন্ত।

রবিবার (২০ জানুয়ারী) সন্ধা ৬টায় উখিয়া মসজিদ মার্কেটের হোসাইন কম্পিউটারে প্রথম বুথের উদ্বোধন করা হয়।

এসময় চাকরি প্রত্যাশিরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে নিজের নাম তালিকায় লিপিবদ্ধ করতে থাকেন।

বুথ উদ্বোধনের সময় উপস্থিত ছিলেন জাগো উখিয়ার মূখপাত্র তরুণ আইনজিবী শফিউল করিম মিঠু, উখিয়া প্রেসক্লাব সভাপতি সরওয়ার আলম শাহীন, চট্টলা বাংলার সম্পাদক শ.ম. গফুর, যুগান্তর প্রতিনিধি শফিক আজাদ, হোসাইন কম্পিউটারের স্বাত্বধিকারী আলী হোসাইন, সংবাদকর্মী এম. সালাহ উদ্দিন আকাশ, অলি উল্লাহ, হাসান এম তৌহিদ, ইব্রাহীম প্রমূখ।

এসময় জাগো উখিয়ার নেতারা বলেন- অধিকার ও অস্তিত্ব রক্ষায় আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে উখিয়া-টেকনাফের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যেতে চাই। আজ উখিয়া মসজিদ মার্কেটের হোসাইন কম্পিউটারে বেকারদের তালিকা তৈরির জন্য প্রথম বুথের উদ্বোধন করা হল পর্যায়ক্রমে উখিয়া-টেকনাফের ব্যস্ততম প্রতিটি স্টেশনে বুথ উদ্বোধন করা হবে। এ জন্য চাই সকলের সহযোগিতা।

তারা আরো বলেন, এ বুথে ১৮ বছরের উপরে উখিয়া উপজেলার যেকোন প্রকৃত বেকার (চাকরি প্রত্যাশী) নিজ হাতে তালিকায় নাম উঠাতে পারবেন। এতে করে আমরা উপজেলায় কতজন ও কে কে প্রকৃত বেকার আছে তার একটা তথ্যবহুল তালিকা প্রণয়ন করতে সক্ষম হব বলে আশা করছি।

উল্লেখ্য, রোহিঙ্গা আসার কারনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে উখিয়া-টেকনাফবাসী পক্ষে তরণদের সমন্বয়ে গঠিত জাগো উখিয়া
গত বুধবার জেলা প্রশাসক কামাল হোসেনের কাছে প্রদান করেন। তার কাছে দেওয়া ১০ দফা দাবি সম্বলিত স্মারকলিপির প্রথম দফার আলোকে তিনি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত এনজিও এর চাকরিতে স্থানীয় (উখিয়া-টেকনাফ) চাকরি প্রত্যাশীদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিলপূর্বক অগ্রাধিকার দেওয়ার জন্য এনজিওগুলোর প্রতি নির্দেশ দেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •