বিশেষ প্রতিবেদক :

টেকনাফের শাহপরীরদ্বীপে ‘মানবপাচারের টাকা’ ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সংঘবদ্ধ চক্রের ছয় সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

আটকরা শাহপরীরদ্বীপ এলাকায় গড়ে উঠা একটি দূর্বত্ত চক্রের সদস্য। তারা মানবপাচার ও ইয়াবাপাচার সহ নানা অপরাধে জড়িত। এসব অভিযোগে এদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে তাদের অপরাধকর্ম নিয়ে ‘কক্সবাজার নিউজ ডটকম’ এবং স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় বিশেষ প্রতিবেদন প্রচারিত হয়।

গত মঙ্গলবার ভোর রাতে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের পূর্ব সমুদ্র উপকূলীয় ডেইল পাড়া থেকে এদের আটক করা হয় বলে জানান শাহপরীরদ্বীপ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মোহাম্মদ ইব্রাহিম।

আটকরা হল, শাহপরীরদ্বীপ ডেইল পাড়ার মকতুল হোসেনের ছেলে মো. আতাউল্লাহ (২৮), সুলতান আহমদের ওরফে বর্মাইয়া ধইল্ল্যার ছেলে মোহাম্মদ ফয়সাল ওরফে ইয়াবা ফয়সাল (২৫), পশ্চিম বাজার পাড়ার ( বর্তমানে ডেইল পাড়া) আজম উল্লাহ মাঝি (৪০), পূর্ব উত্তর পাড়ার মৃত মোহাম্মদ নুরু ওরফে নুরু মেম্বারের ছেলে মোহাম্মদ মামুন (২৫) একই এলাকার মোহাম্মদ গগির ছেলে মোহাম্মদ বাইল্ল্যা ওরফে ঘাট বাইল্ল্যা (৫০) ও কোনার পাড়ার হাবিবুর রহমানের ছেলে আকতার হোসেন (২৫)।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, আটকরা সকলে সংঘবদ্ধ একটি অপরাধী চক্রের সদস্য। শাহপরীরদ্বীপের ডেইল পাড়ার মৃত মকতুল হোসেনের ছেলে কেফায়েত উল্লাহ’র নেতৃত্বে গড়ে উঠা ১৫/২০ জনের চক্রটি মানবপাচার ছাড়াও ইয়াবাপাচার, চোরাচালান এবং আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের ভয় দেখিয়ে সাধারণ লোকজনের কাছে চাঁদা দাবি সহ নানা ধরনের দূর্বত্তাপনা সংঘটিত করে আসছে। ‘মানবপাচারের টাকা’ ভাগবাটোয়ারা নিয়ে নিজেদের মধ্যে দ্বন্ধের জের ধরে পুলিশের হাতে আটকরা ‘কেফায়েত উল্লাহ’ বাহিনীর সদস্য। এ বাহিনীতে তার জমজ ভাই মুজিব উল্লাহ ও মনির উল্লাহ সহ নিকট আত্মীয় স্বজনরাও জড়িত।

এদিকে গত ১২ ডিসেম্বর রাতে কক্সবাজারের পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজপোর্টাল ‘কক্সবাজার নিউজ ডটকমে’ ‘শাহপরীরদ্বীপে দূর্বৃত্ত চক্রের কাছে এলাকাবাসী জিন্মি’ শিরোনামে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। অপরাধী চক্রের সদস্য হিসেবে প্রতিবেদনটিতে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়; গত মঙ্গলবার ভোর রাতে পুলিশের কাছে আটকদের মধ্যে কয়েকজনের নামও রয়েছে। এছাড়াও চক্রটির অপরাধকর্ম নিয়ে গত ১৩ ডিসেম্বর কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত স্থানীয় ‘দৈনিক সকালের কক্সবাজার’ পত্রিকায়ও একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রচারিত হয়।

এতে চক্রটির সঙ্গে জড়িত কয়েকজনের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ইয়াবাসহ আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের হাতে বিভিন্ন সময় আটকের খবর পাওয়া যায়। এছাড়াও ইয়াবাপাচার ও মানবপাচার সহ নানা অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে তাদের প্রত্যকজনের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে।

এসআই ইব্রাহিম বলেন, মঙ্গলবার ভোর রাতে শাহপরীরদ্বীপের পূর্ব উপকূলীয় এলাকা ডেইল পাড়ায় অজ্ঞাত কিছু লোকজনের হইহুল্লোড় ও তর্কাতর্কির শব্দ শুনে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে কৌশলে তাদের অবস্থানস্থল ঘিরে ফেলে।

” এসময় পুলিশের আভিযানিক দলের সদস্যরা উৎপেতে শুনতে পায়, জড়ো হওয়া কিছু লোক টাকার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে তর্কাতর্কিতে লিপ্ত হয়েছে। তারা পরস্পর উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ের এক পর্যায়ে হাতাহাতিতেও জড়িয়ে পড়ে। পরে তাদের মধ্যে ২/৩ জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও ৬ জনকে আটক করা হয়। ”

ইব্রাহিম বলেন, ” আটকরা ঘটনাস্থলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, মালয়েশিয়ায় মানবপাচারের টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে নিজেরা তর্কাতর্কিতে জড়িয়েছিল। সাম্প্রতিক সময়ে তারা বেশ কিছু রোহিঙ্গা সমুদ্রপথে মালয়েশিয়ায় পাচার করেছে। ”

শাহপরীরদ্বীপ ফাঁড়ির দায়িত্বরত পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান, আটকদের মঙ্গলবার দুপুরে টেকনাফ থানায় প্রেরণ করা হয়। তাদের থানা হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বুধবার রাত ১০ টার দিকে মুঠোফোনে কথা হলে এসআই ইব্রাহিম বলেন, আটকদের থানা হেফাজতে রেখে এখনো জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে শাহপরীরদ্বীপে জনৈক কেফায়েত উল্লাহ’র নেতৃত্বে গড়ে উঠা দূর্বৃত্ত চক্রটির কয়েক সদস্য পুলিশের হাতে আটক হওয়ায় স্বস্থি প্রকাশ করেছে স্থানীয়রা। তারা আটকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি শাস্তির দাবি জানিয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •