কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া
তীব্র শীত যখন ঝেঁকে বসেছে ঠিক তখনি পাথুরে রাণী খ্যাত ইনানী বীচ মুখরিত দেশি-বিদেশি পর্যটকের ভীড়। পর্যটন মৌসুমে প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য উপভোগে আগ্রহী মানুষের পদচারনায় এখানকার হোটেল, কর্টেজ, রিসোর্ট গুলো মুখরিত এখন। ফলে আগের ন্যায় পর্যটন ব্যবসায় ফিরছে চাঙ্গা ভাব।
প্রতি বছর শীতে কক্সবাজারে শুরু হয় পর্যটন মৌসুম। জাতীয় নির্বাচনের কারনে পর্যটকের আগমনে কিছুটা ভাটা পড়লেও এ সপ্তাহ ধরে প্রতিদিনই বাড়ছে পর্যটকের আনাগোনা। শীত মৌসুমে সাগরের নীল জলরাশিতে উচ্ছ্বাস আর আনন্দে মেতেছেন ভ্রমন পিপাসুরা। তাদের উল্লাসে মুখরিত এখন উখিয়ার পাথুরে রাণী খ্যাত ইনানী বীচ।
১৫ জানুয়ারী বিকালে চট্রগ্রাম থেকে আসা মির্জা ইমতিয়াজ শাওন জানান- কক্সবাজারের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ সমুদ্র সৈকত।সকালে-বিকেলে সমুদ্রতীরে বেড়াতে মন চায়। আর তা যদি হয়ে থাকে ইনানীর মত কোলাহল মুক্ত কোন জায়গা, তাহলেতো কোন কথায় নেই। ইনানী সুমদ্র সৈকত মানে দুনিয়ার রহস্য- রোমান্সের হাতছানি।
ফেনী থেকে আসা আব্দুল কাদের বলেন, জীবনে প্রথম বার কক্সবাজার জেলার উখিয়ার ইনানী সী-বিচে এসেছি। তাও আবার স্ব-পরিবারে। সাগরের ঢেউ পাথরের বুকে আঁচড়ে পড়ার দৃশ্য আসলে মনোমুগ্ধকর। একদিকে সমুদ্র অন্যদিকে সবুজ বড় বড় পাহাড়। এ যেন এক প্রকৃতির এক অপরূপলীলা। এখানকার আইন- শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খুব ভাল। গত কয়েক দিনের হিসেব মতে উখিয়ার ইনানীতে পর্যটকের আগমন ঘটেছে হাজারে হাজারে। ফলে এখানকার সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের মাঝে বেশ চাঙ্গা ভাব।
জাতীয় নির্বাচনের পর ইনানীতে যে ভাবে দেশি-বিদেশি পর্যটক আসা শুরু করেছে তাতে এখানকার পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা মনে করছেন এবারের পর্যটন মৌসুমটা তাদের কাটবে বেশ ভাল। ইনানী প্যবেল বীচ রিসোর্ট এন্ড রেষ্টুরেন্টের কর্মচারী বোরহান জানান, আমাদের রিসোর্টে এখন পর্যটকে ভরপুর, তাদের সেবা দিতে দিতে আমরা ক্লান্ত।
লাভেলা রিসোর্টের ইনচার্জ জুবায়ের চৌধুরি বলেন,এই মৌসুমে নির্বাচনকালীন সময়ে ব্যবসায় মন্ধা ভাব গেলেও এখন ফিরে এসেছে চাঙ্গা ভাব।
জালিয়াপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরী ও ব্যবসায়ী নাজিম উদ্দিন চৌধুরী বলেন,নির্বাচনের পর থেকে ইনানীতে প্রচুর পর্যটকের আসা- যাওয়া শুরু হয়েছে। ব্যবসা -বাণিজ্য ভালই হচ্ছে। এখানকার মানুষ অতিথি পরায়নও। তাই পর্যটকদের প্রতিও তাদের রয়েছে সু-দৃষ্টি। এখানকার আইন -শৃঙ্খলা পরিস্থিতিও খুব ভাল।
ইনানী টুরিষ্ট পুলিশের ইনচার্জ শাখাওয়াত হোসেন বলেন,ইনানীতে আগত পর্যটকদের জন্য বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে। ছিনতাই, ইভটিজিং, অতিরিক্ত ভাড়াসহ নানা হয়রানী থেকে পর্যটকদের নিরাপদ রাখতে তারা দিন রাত কাজ করে যাচ্ছেন।এব্যাপারে জানতে চাইলে উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের বলেন,জাতীয় নির্বাচনের পর ইনানী সী-বিচে পর্যটকদের ভীড় বাড়ছে,তবে পর্যটকরা যেন হয়রানির শিকার না হয় সে ব্যাপারে বিচে ইনানী টুরিষ্ট পুলিশ কাজ করছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •